Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ২০ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, রবিবার, ২০ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১২ জানুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ১২ জানুয়ারি, ২০১৭ ০০:০৮
ঠাণ্ডা ও ঘন কুয়াশায় জনজীবন বিপর্যস্ত
কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি

কুড়িগ্রামে ঘন কুয়াশা ও কনকনে ঠাণ্ডায় জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। রাতভর ঝমঝম করে বৃষ্টিরমতো পড়ছে কুয়াশা।

পাশাপাশি সকালে ও বিকালে উত্তরীয় হিমেল হাওয়া শীতের মাত্রা বাড়িয়ে দিচ্ছে। সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত মিলছে না সূর্যের দেখা। ঘন কুয়াশার কারণে দিনের বেলায়ও হেড লাইট জ্বালিয়ে চলছে যানবাহন। এ অবস্থায় গরম কাপড়ের অভাবে চরম দুর্ভোগে পড়েছে ছিন্নমূল ও খেটে খাওয়া মানুষ। প্রচণ্ড ঠাণ্ডায় মাঠে যেতে পারছেন না কৃষি শ্রমিকরা। বিশেষ করে  জেলার নদ-নদীর তীরবর্তী এলাকার চর ও দ্বীপে বেশি ঠাণ্ডা অনুভূত হওয়ায় এখানকার মানুষ খুড়কুটো জ্বালিয়ে শীত নিবারণের চেষ্টা করছে। ঠাণ্ডাজনিত রোগে আক্রান্ত হচ্ছে শিশু ও বৃদ্ধরা। তীব্র শীতে দুর্ভোগ বেড়েছে গবাদি পশু পাখিরাও।

কুড়িগ্রাম শহরের রিকশাচালক মনোয়ার হোসেন জানান, সকাল ৮টা বাজে এখনো অনেক শীত। গাড়ি চালাতে পারছি না। অনেক কষ্ট হলেও বাধ্য হয়ে রিকশা নিয়ে বের হয়েছি।

কুড়িগ্রাম পৌরসভায় গড়ের পাড় এলাকার মর্জিনা বেওয়া জানান, আমরা গরিব মানুষ কাজ করে ভাত খাই। গরম কাপড় না থাকায় সকালে বের হতে পারি না।

কুড়িগ্রাম আবহাওয়া অফিসের পর্যবেক্ষক জাকির হোসেন জানান, এ অঞ্চলের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৯.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

কুড়িগ্রামের জেলা প্রশাসক খান মো. নুরুল আমিন জানান, কুড়িগ্রামের শীতার্ত মানুষের জন্য ৫৩ হাজার ১৮৫টি কম্বল বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। যা উপজেলা প্রশাসনের মাধ্যমে বিতরণ করা হয়েছে।

up-arrow