Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বুধবার, ২৩ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, বুধবার, ২৩ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : রবিবার, ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:০৮
প্রেমে রাজি না হওয়ায় ছাত্রীকে কীটনাশক খাইয়ে হত্যা
ঝিনাইদহ প্রতিনিধি

ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুরে প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় রিমা ওরফে রিপনা খাতুন (১২) নামে এক স্কুলছাত্রীকে কীটনাশক খাইয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় থানায় পাঁচজনকে আসামি করে মামলা করেছে নিহতের পরিবার।

দুই নারীকে আটক করেছে পুলিশ। ঘটনার পর থেকে প্রধান আসামি নাজমুল পলাতক। হত্যার ঘটনাটি ঘটে গত বৃহস্পতিবার দুপুরে। রিমা কোটচাঁদপুর উপজেলার ফাজিলপুর গ্রামের রিপন হোসেনের মেয়ে ও আসাননগর-কুল্লাগাছা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী। অভিযুক্ত নাজমুল সদর উপজেলার মির্জাপুরের আলম হোসেনের ছেলে। তিনি কোটচাঁদপুরে নানা বাড়িতে থাকতো। রিমার দাদা শুকুর আলী জানান, নাজমুল তার নাতনীকে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে প্রায়ই উত্ত্যক্ত ও হত্যার হুমকি দিত। এ ঘটনায় তিনি আসাননগর-কুল্লাগাছা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের কাছে দুইবার অভিযোগ দিয়েছেন। গত বুধবার রাত ৮টার দিকে নাজমুল ও তার বন্ধু আলমগীর বাড়ির পাশে একা পেয়ে রিমাকে তুলে একটি বাগানে নিয়ে যায়। রাত ১টার দিকে অপহরণকারীরা তাকে বাড়ির পাশে রেখে আসে। বিষয়টি রাতেই রিমা পরিবারকে জানায়।

পরদিন দুপুরে বিষয়টি নিয়ে নাজমুলের পরিবারের সঙ্গে রিমার পরিবারের লোকজনের বিবাদ শুরু হয়। এ সময় রিমা ঘরে একা থাকায় নাজমুল ও তার এক সহযোগী তাকে জোর করে কীটনাশক খাইয়ে পালিয়ে যায়। স্বজনরা টের পেয়ে তাকে কোটচাঁদপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেন। অবস্থার অবনতি হলে যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। শনিবার ভোরে সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় রিমা। রিমার বাবা রিপন জানান, মেয়ে ডাক্তারদের বলেছে নাজমুল তার মুখে কীটনাশক ঢেলে দিয়েছে। তিনি এ হত্যার বিচার চান। আসাননগর-কুল্লাগাছা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নাজমুর রহমান বলেন, উত্যক্তের বিষয়ে রিমার অভিভাবক আমাদের কয়েকবার জানিয়েছিল। কিন্তু কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি। কোটচাঁদপুর থানার ওসি জানান, এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নাজমুলের খালা ও সুমাকে আটক করা হয়েছে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow