Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ২৫ নভেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, শনিবার, ২৫ নভেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : শুক্রবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:২৬
ক্ষমতাসীনদের বিরুদ্ধে প্রভাব বিস্তারের অভিযোগ, আওয়ামী লীগের অস্বীকার
গৌরনদী উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচন
নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল

৬ মার্চ অনুষ্ঠেয় গৌরনদী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থীর পোস্টার ছিঁড়ে-পুড়িয়ে ফেলা, প্রচারণায় বাধা, কর্মীদের মারধর ও হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে ক্ষমতাসীনদের বিরুদ্ধে। রিটার্নিং অফিসারের কাছে গত মঙ্গলবার দেওয়া লিখিত অভিযোগে এ তথ্য জানা গেছে।

অভিযোগে বিএনপি প্রার্থী এসএম মনজুর হোসেন মিলন উল্লেখ করেন, গত ২০ ফেব্রুয়ারি উপজেলার সর্বত্র সাটানো ধানের শীষের হাজার হাজার পোস্টার আওয়ামী লীগ প্রার্থীর কর্মীরা ছিঁড়ে পুড়িয়ে ফেলে। ২১ ফেব্রুয়ারি যুবদল-ছাত্রদল কর্মীরা টরকী বাসস্ট্যান্ডে পোস্টার টাঙাতে গেলে তাদের উপর চড়াও হয় আওয়ামী লীগ কর্মীরা। অন্যরা পালিয়ে যেতে পারলেও মিলন ও বোরহান নামে দুজনকে মারধর করে। এ সময় নির্বাচনের আগে যুবদল-ছাত্রদল কর্মীদের এলাকা ছাড়তে হুঁশিয়ারি দেয়। ধানের শীষের প্রচারণায় কেউ রিকশা, অটোরিকশা, মাহেন্দ্র ও ভ্যান ভাড়া দিলে তাদেরও দেখে নেওয়ার হুমকি দেওয়া হয়। অভিযোগপত্রে আরও বলা হয়, খাঞ্জাপুর ইউনিয়নের মেদাকুল এলাকায় বিএনপির প্রচারণায় হামলা চালিয়ে এক কর্মীকে মারধরসহ বিভিন্ন এলাকায় ধানের শীষের প্রচারণায় বাধা, কর্মীদের এলাকা ছাড়ার হুমকি দেওয়া হচ্ছে। এমনকি তাকেও (প্রার্থী) প্রাণনাশের হুমকি দিয়েছে। তবে এসব অভিযোগ ভিত্তিহীন, বানোয়াট বলে দাবি করেছেন গৌরনদী আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র হারিছুর রহমান হারিছ। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ চায় সুষ্ঠু-সুন্দর পরিবেশে শান্তিপূর্ণ নির্বাচন। জনগণ যাকে ভোট দেবেন তিনিই উপজেলা চেয়ারম্যান হবেন। রিটার্নিং অফিসার ও জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আরিফুল হক জানান, বিএনপি প্রার্থীর অভিযোগগুলো খতিয়ে দেখে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। উল্লেখ্য, আগামী ৬ মার্চ গৌরনদী ও বানারীপাড়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচন। এ নির্বাচনে গৌরনদীতে বিএনপি প্রার্থী মিলনের একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের সৈয়দা মনিরুন্নাহার মেরী। অপরদিকে বানারীপাড়ায় আওয়ামী লীগের গোলাম ফারুক, বিএনপির শাহেআলম, জাতীয় পার্টির মিজানুর রহমান চোকদার এবং জাসদের (আম্বিয়া-প্রধান) একাংশের প্রার্থী টিপু সুলতান প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। গত বছর চেয়ারম্যানের মৃত্যুতে গৌরনদীতে এবং পদত্যাগজনিত কারণে বানারীপাড়া উপজেলা চেয়ারম্যানের পদ শূন্য হয়।

পালিয়ে বেড়াচ্ছেন বিএনপির প্রার্থী : মোরেলগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান পদের উপ-নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী নিরাপত্তাহীনতার কারণে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন। তার জীবনের নিরাপত্তা নেই বলে খোদ নির্বাচন কমিশনারের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী বদিউজ্জামান বলেছেন, ‘মনোনয়নপত্র বাছাইয়ের দিন অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীরা আমার কর্মী বাহিনী ও আমাকে তাড়িয়ে দেয় এবং খুন জখম করার হুমকি দেয়। সে কারণে আমার কর্মীরা ও আমি পালিয়ে বেড়াচ্ছি’। সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানের দাবি জানিয়েছেন এই প্রার্থী। তফসিল অনুযায়ী আগামী ৬ মার্চ এখানে ভাইস চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow