Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ২৫ নভেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, শনিবার, ২৫ নভেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : শনিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:১০
ব্যক্তিগত টাকায় তৈরি রাস্তা ঢুকল কাবিটা প্রকল্পে
মহেশপুরের মানুষের বিস্ময়
ঝিনাইদহ প্রতিনিধি

বাড়িটি মহেশপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্যসহকারী আবুজর মোল্লার। মেইন রোড থেকে তার বাড়ি ঢোকার ৫০ ফুট রাস্তা তিনি নিজ খরচেই পাকা করেছেন।

রাস্তার ধারে সড়ক ও জনপথ বিভাগের জমি দখল করে নির্মাণ করেছেন গেট। এখন এলাকার মানুষ বিস্মিত। তারা বলছেন, ব্যক্তিগত টাকায় এই রাস্তা কাবিটা প্রকল্পে ঢুকল কীভাবে! নির্মাণের জন্য ঝিনাইদহ-৩ আসনের সংসদ সদস্য নবী নেওয়াজের দেওয়া প্রকল্পে এই রাস্তার নাম উঠেছে। আবুজর মোল্লার বাড়ি যাওয়া রাস্তা সংস্কারের জন্য ৩৭ হাজার ১০০ টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। এ নিয়ে মহেশপুরে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। সমালোচকদের ভাষ্য, মহেশপুর উপজেলার অনেক গ্রামে ভাঙাচোরা রাস্তা আছে। সেগুলো সংস্কার করা হয় না। রাস্তাগুলো একেবারেই চলাচলের অযোগ্য। অথচ ব্যক্তিবিশেষের বাড়ি যাওয়ার রাস্তা প্রকল্পভুক্ত করা হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে সরকারি চাকুরে আবুজর মোল্লা বলেন, পাঁচ-ছয় গাড়ি ইট ও কিছু খোয়া দিয়ে চলতি মাসের প্রথম দিকে তিনি তার বাড়ি যাওয়ার রাস্তা নির্মাণ করেছেন। তিনি জানান, ‘আমার বাড়ি যাওয়ার রাস্তা মেরামতে কারও কাছে সাহায্যও চাইনি। যদি কেউ এমন প্রকল্প দিয়ে থাকেন তাহলে তা হবে অন্যায়। ’ এ ব্যাপারে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মেহেরুন নেছা জানান, ‘এমপি মহোদয় প্রকল্প লিখে আমাদের দিয়েছেন। আমরা তা তালিকাভুক্ত করেছি। ’ তিনি বলেন, ‘প্রকল্পের বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ উঠলে তদন্ত করে তা বাতিল করা হবে। ’ এ বিষয়ে নবী নেওয়াজ এমপি বলেন, এমন যদি হয়েই থাকে তবে তা তার অজ্ঞাতসারে হয়েছে। তিনি বলেন, ‘আমি এলাকার বৃহৎ উন্নয়নে মন্ত্রণালয় ও মন্ত্রীদের কাছে ছুটে বেড়াই। হয়তো আমার অজানায় এমনটি হতে পারে। তবে আমি বিষয়টি বাতিল করার ব্যবস্থা করব। ’ অভিযোগ উঠেছে, এমপিকে অন্ধকারে রেখে মহেশপুর উপজেলায় এ রকম কাজ করা হচ্ছে। ভুয়া প্রকল্প দেখিয়ে সরকারি টাকা পকেটস্থ করা হচ্ছে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow