Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ২০ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, রবিবার, ২০ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : সোমবার, ৬ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ৫ মার্চ, ২০১৭ ২৩:২২
বাম্পার ফলনেও হাসি নেই শেরপুরের আলু চাষিদের
নিজস্ব প্রতিবেদক, বগুড়া

বগুড়ার শেরপুর উপজেলায় আলুর বাম্পার ফলন হলেও কৃষকের মুখে হাসি নেই। আলুর দাম পড়ে যাওয়ায় ক্ষতির মুখে পড়েছেন চাষিরা।

বিঘাপ্রতি জমিতে তাদের লোকসান গুনতে হচ্ছে পাঁচ থেকে সাত হাজার টাকা। এ লোকসান কীভাবে কাটিয়ে উঠবেন ভেবে দিশাহারা আলুচাষিরা। বর্তমানে শেরপুরে সাত টাকা কেজি দরে আলু বিক্রি হচ্ছে।

স্থানীয় কৃষি অধিদফতর জানায়, চলতি মৌসুমে শেরপুর উপজেলায় দুই হাজার ৪০০ হেক্টর জমিতে আলু চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়। তবে চাষ হয়েছে তিন হাজার হেক্টর জমিতে। গেল কয়েকদিন থেকে আলু তোলা শুরু হয়েছে। বিঘাপ্রতি ৭০ থেকে ৯০ মণ হারে আলু নেমেছে। কিন্তু ভালো ফলন হলেও বাজারে আলুর দাম অস্বাভাবিক পড়ে যাওয়ায় লোকসান গুনতে হচ্ছে কৃষকের। কুসুম্বী ইউনিয়নের উঁচুলবাড়িয়া গ্রামের মোফাজ্জল হোসেন জানান, তিন বিঘা জমিতে আলু লাগিয়েছেন। এতে ব্যয় হয়েছে ৮০ হাজার টাকা। অথচ এসব জমির আলু বিক্রি হয়েছে মোট ৬৫ হাজার টাকা। চণ্ডেশ্বর গ্রামের সাহাব উদ্দিন জানান, এই এলাকার বেশিরভাগ আলুচাষি গরিব। তাদের পক্ষে চাষের খরচ যোগান দেওয়া সম্ভব হয় না। তাই মহাজনদের কাছ থেকে অগ্রিম টাকা নিয়ে আলু চাষ করে থাকেন। ফলে মহাজনদের কাছেই বিক্রি করতে হয়। এজন্য বাজারের চেয়ে আরো কম দামে আলু বিক্রি করছেন তারা।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow