Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : রবিবার, ১২ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ১১ মার্চ, ২০১৭ ২৩:১২
কৃত্রিম সংকট দেখিয়ে চড়া দামে সার বিক্রি
ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি

ঠাকুরগাঁওয়ে কৃত্রিম সংকট দেখিয়ে বেশি দামে ইউরিয়া সার বিক্রি করা হচ্ছে। একশ্রেণির ব্যবসায়ী এ কাজে জড়িত বলে অভিযোগ উঠেছে।

কৃষকরা বলছেন, প্রতি বস্তা ইউরিয়া সার সরকার নির্ধারিত ৮০০ টাকার জায়গায় সাব-ডিলাররা নিচ্ছেন ৮২০ থেকে ৮৪০ টাকা। জেলা প্রশাসন বলছে, ঠাকুরগাঁওয়ে সারের কোনো সংকট নেই। যারা বেশি দাম নিচ্ছেন তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কৃষি বিভাগ জানান, জেলায় পর্যাপ্ত পরিমাণ সার আছে। গত বুধবার পর্যন্ত ৯ হাজার ৭০০ মেট্রিক টন ইউরিয়া বাফার গুদামে মজুদ ছিল। সদর উপজেলা কচুবাড়ি বোর্ড অফিস বাজারে গিয়ে দেখা যায়, ‘মেসার্স নইমউদ্দিন অ্যান্ড সন্স’ নামের একটি সারের দোকানে কয়েকজন কৃষক ইউরিয়া ও টিএসপি কিনছেন। এদের মধ্যে দুজন কৃষক জানান, প্রতি বস্তা ইউরিয়া ৮২০ টাকা ও টিএসপি ১১৭০ টাকা দরে কিনেছেন তারা। দাম বেশি নেওয়ার কথা বললে দোকানদার বলেন বাজারে সার সঙ্কট; তাই বস্তা প্রতি কিছু বেশি নিচ্ছেন। জেলার বিভিন্ন খুচরা দোকানের চিত্র একই। জেলা ফার্টিলাইজার অ্যাসোসিয়েশনের (বিএফএ) সাধারণ সম্পাদক শামসুজ্জামান দুলাল জানান, ঠাকুরগাঁওয়ে সারের সঙ্কট নাই।

কোনো দোকানদার যদি সরকারি মূল্যের চেয়ে কৃষকদের কাছে বেশি টাকা নেন; তার বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ঠাকুরগাঁও কৃষি সমপ্রসারণ বিভাগের উপ-পরিচালক মাসুদুল ইসলাম জানান, ডিলারদের ঘরে পর্যাপ্ত সার মজুদ আছে। কাজেই দাম বেশি নেওয়ার প্রশ্নই ওঠে না।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow