Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ২০ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, রবিবার, ২০ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৬ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ১৫ মার্চ, ২০১৭ ২৩:৫৯
গাইড বাণিজ্যে শিক্ষকরা
নাটোর প্রতিনিধি

নাটোরের গুরুদাসপুরের নাজিরপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে গাইড বই ও শিক্ষার্থীদের পায়ের জুতা সরবরাহের নামে অর্থ বাণিজ্যের অভিযোগ উঠেছে। গাইড এবং জুতা কোম্পানির প্রতিনিধির সঙ্গে যোগাযোগ করে চলছে এই বাণিজ্য।

সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, নাজিরপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রায় শিক্ষার্থীর কাছে আদিল প্রকাশনীর গাইড এবং সাদা রঙের জাম্বকেডস ব্যবহার করছে। ওই প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষক ফরিদ উদ্দিন জুতা কোম্পানির প্রতিনিধিদের সঙ্গে যোগযোগ করে ছাত্র-ছাত্রীদের ওই কোম্পানির জুতা কিনতে বাধ্য করছেন। যেসব শিক্ষার্থী ওই কোম্পানির জুতা ব্যবহার করে না তাদের স্কুল থেকে বের করে দেওয়ার অভিযোগও রয়েছে। গত মঙ্গলবার প্রায় ২০০ শিক্ষার্থীকে স্কুল থেকে বের করে দিলে তারা কাঁদতে কাঁদতে বাড়ি যায়। অভিভাবকরা অভিযোগ করে বলেন, তাদের ছেলে-মেয়েদের জুতা কিনে দিয়েছেন, কিন্তু ওই কোম্পানির জুতা না দেওয়ায় তাদের ছেলে-মেয়েকে স্কুল থেকে বের করে দিয়েছে। প্রধান শিক্ষক মো. ফরিদ উদ্দিন শিক্ষার্থীদের বের করে দেওয়ার কথা স্বীকার করে বলেন, স্কুলের সৌন্দর্য বৃদ্ধির জন্য জাম্বকেস জুতা ৪৫০ টাকা করে স্কুল থেকে সরবরাহ করা হয়েছে। ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি লুত্ফর রহমান হিরা জানান, স্কুল থেকে শিক্ষার্থীদের বের করে দেওয়ার ঘটনা দুঃখজনক। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা হাফিজুর রহমান বলেন, ‘বিষয়টি শুনেছি। আমি বাইরে আছি। এসে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব। ’

এই পাতার আরো খবর
up-arrow