Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ১৮ নভেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, শনিবার, ১৮ নভেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : শনিবার, ১৮ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ১৮ মার্চ, ২০১৭ ০১:৫১
ফরিদপুরে আগুনে পুড়ে মা-মেয়ের মৃত্যু
ফরিদপুর প্রতিনিধি

জেলার সালথা উপজেলার বল্লভদী ইউনিয়নের পূর্ব ফুলবাড়িয়া গ্রামে আগুনে পুড়ে মারা গেছে মা ও মেয়ে। এ ঘটনায় মারাত্মকভাবে দগ্ধ হয়েছে ওই পরিবারের প্রধান কর্তা সেন্টু মোল্লা।

মর্মান্তিক এ ঘটনাটি ঘটে বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত সাড়ে তিনটার দিকে। গ্রামবাসী জানান, বল্লভদী ইউনিয়নের পূর্ব ফুলবাড়িয়া গ্রামের ভ্যানচালক সেন্টু মোল্লার বাড়িতে রাত সাড়ে তিনটার দিকে হঠাৎ বিকট শব্দ হয়। এর পরেই সেন্টু মোল্লার ঘরে আগুন ধরে যায়। কোনো কিছু বুঝে ওঠার আগেই আগুন ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় ঘুমন্ত অবস্থায় আগুনে পুড়ে মারা যায় সেন্টু মোল্লার স্ত্রী ফরিদা বেগম (৩০) ও তার মেয়ে রাবেয়া (৪)। এ ঘটনায় আহত হন ভ্যানচালক সেন্টু মোল্লা। তাকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। স্থানীয়দের ধারণা বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়ে থাকতে পারে।

এদিকে, সেন্টু মোল্লার শরীরের প্রায় চল্লিশ ভাগ পুড়ে গেছে।

আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আনা হয়েছে। সেন্টু মোল্লা কান্নাজড়িত কণ্ঠে জানান, আমরা ঘরের দুটি রুমে ৫ জন ছিলাম। হঠাৎ বিকট শব্দে ঘুম ভেঙে যায়। এ সময় চারদিকে আগুন দেখতে পেয়ে চিৎকার দিয়ে ঘর থেকে বের হয়ে আসি। ঘরের মধ্যে থাকা আমার ৪ বছরের মেয়ে রাবেয়া আক্তারকে আনতে গিয়ে আগুনের কারণে আনতে পারিনি। এ সময় আমার শরীরেও আগুন ধরে যায়।

স্থানীয় ইউপি সদস্য ইউনুস মোল্লা জানান, আগুন লাগার পর পরই গ্রামবাসী ঘণ্টাব্যাপী চেষ্টা চালিয়ে আগুন নেভাতে সক্ষম হয়। আগুনে সেন্টু মোল্লার একমাত্র ঘরটি সম্পূর্ণরূপে ভস্মীভূত হয়।

ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক রুমালী আক্তার জানান, সেন্টু মোল্লার শরীরের বেশকিছু অংশ পুড়ে গেছে। আমরা তাকে পর্যবেক্ষণে রেখেছি। পরিস্থিতি বুঝে তাকে ঢাকায় পাঠানো হতে পারে।

সালথা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম আমিনুল হক জানান, নিহতদের উদ্ধার করে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow