Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : সোমবার, ১৯ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ১৯ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:৩৬
সাক্ষী হওয়ায় আট পরিবার একঘরে!
নাটোর প্রতিনিধি
সাক্ষী হওয়ায় আট পরিবার একঘরে!
আট পরিবারের সদস্যরা —বাংলাদেশ প্রতিদিন

নাটোরের সিংড়া উপজেলার আগ তিরাইল গ্রামে হত্যা মামলার সাক্ষী হওয়ায় আট পরিবারকে একঘরে করে রাখার অভিযোগ উঠেছে। প্রভাবশালীদের হুমকির মুখে পালিয়ে বেড়াচ্ছে ওই সব পরিবারের পুরুষ সদস্যরা। ভুক্তভোগীরা থানায় অভিযোগ করলেও বিষয়টির সুরাহা হয়নি। জানা যায়, ২০১৫ সালের ২২ আগস্ট আগ তিরাইল পশ্চিম পাড়ার আব্দুল হান্নান খুন হন। এ ঘটনায় হান্নানের ভাই ১৮ জনকে অভিযুক্ত করে থানায় মামলা করেন। আসামির মধ্যে অন্যতম স্থানীয় মাহাতাব উদ্দিন, তার ছেলে মজনু ও ভাতিজা ভট্টু সরদার। সাক্ষী করা হয় আইযুব আলীসহ আগ তিরাইলের আরও পাঁচ পরিবারের সদস্যদের। ওই হত্যার তিন বছর পর গত ১৮ অক্টোবর এলাকায় মাইকিং করে বলা হয় মামলার সাক্ষী আটজনের বাড়িতে কেউ যেন কাজ না করে ও কোনো প্রকার সম্পর্ক না রাখে। তাদের আত্মীয়-স্বজনকে রাস্তা দিয়ে হাঁটতেও দিচ্ছে না বলে অভিযোগ আছে। ভুক্তভোগীরা সবাই কৃষক। তাদের জমির পাকা ধান কাটতে না পারায় অনেক ফসল মাটির সঙ্গে মিশে গেছে।

মামলার এক সাক্ষী আইয়ুব আলী জানান, ‘আমি যেন সাক্ষ্য না দেই এবং বাদীকে মামলা তুলতে বাধ্য করি সেজন্য আসামিরা আমাকে হুমকি-ধমকিসহ চাপ সৃষ্টি করে। তাতেও রাজি না হলে তারা মাইকিং করে আমিসহ আট পরিবারকে এক ঘরে করে। আমাদের জমিতে কোনো কৃষাণ যেন কাজ না করে মাইকে সে ঘোষণাও প্রচার করে। আমরা গ্রাম ছেড়ে মানবেতর জীবনযাপন করছি। নারী-শিশুরা বাড়িতে থাকলেও তাদের মধ্যে আতঙ্ক কাজ করছে।’ সিংড়া সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার মীর আসাদুজ্জামান বলেন, অভিযোগ পেয়ে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছি। গ্রামের একঘরে পরিবারগুলোর নিরাপত্তার জন্য পুলিশকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে। তারা যেন নির্বিঘ্নে জমির ধান কাটতে পারে সে ব্যাপারে সহযোগিতা করা হবে।’

এই পাতার আরো খবর
up-arrow