Bangladesh Pratidin

ঢাকা, সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : ৬ জুন, ২০১৬ ১৭:৩৬
আপডেট : ১ জানুয়ারি, ১৯৭০ ০৬:০০
হবিগঞ্জে নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতায় ওসিসহ আহত ৫০
হবিগঞ্জ প্রতিনিধি:
হবিগঞ্জে নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতায় ওসিসহ আহত ৫০

হবিগঞ্জ সদর উপজেলার পইল ইউনিয়নে নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতায় পুলিশের ওসি ও এসআইসহ অন্তত ৫০ জন আহত হয়েছে। আজ দুপুরে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এসময় ভাঙচুর করা হয় ১০/১২টি বাড়ী ঘর। পরে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ২৪ রাউন্ড বুলেট নিক্ষেপ করে। 

এদিকে সংঘর্ষে আহতদের মধ্যে গুরুতর অবস্থায় ২৫ জনকে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, শনিবার অনুষ্ঠিত নির্বাচনে পইল ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ প্রার্থী সাহেব আলীকে পরাজিত করে বিজয়ী হন স্বতন্ত্র প্রার্থী মইনুল হক আরিফ। নির্বাচনের পর থেকেই উভয় পক্ষের মাঝে উত্তেজনা বিরাজ করছিল। আজ সকালে সাহেব আলীর লোকজন পইল গ্রামের মইনুল হক আরিফের সমর্থক মধু মিয়ার বাড়ীতে হামলা চালিয়ে ১০/১২টি ঘর ভাঙচুর করে। 

এ ঘটনায় আরিফের লোকজনও পাল্টা আক্রমন করে। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে আরিফের পক্ষে পইল, লামা পইল, দেবপাড়া, নাজিরপুর, আটঘরিয়া, ছয়ঘরিয়া, আছিপুর, সুলতানশী, আউশপাড়া, শরীফপুর এবং সাহেব আলীর পক্ষে পূর্ব পইল, পশ্চিম পইলসহ আশপাশের কয়েকটি গ্রামের লোকজন সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। 

বিকেল ৪টা পর্যন্ত দফায় দফায় সংঘর্ষে হবিগঞ্জ সদর থানার ওসি তদন্ত বিশ্বজিৎ, এসআই ছানাউল্লাসহ অন্তত ৫০ জন আহত হয়। আহতদের মধ্যে সিরাজ আলী, লিয়াকত আলী, জুয়েল চৌধুরী, রুবেল মিয়া, সামছু মিয়া, সাদেক মিয়া, সাদেক আলী, রাজিব, সোহাগ, শামীম, কদ্দুছ, তৈয়ব আলী, বাচ্চু, মনু, হাবিবুর, রিপন,  ছালেক, দিনার, রিপন মিয়া, সামছুদ্দিন, আলমগীর, খেলু মিয়া, আব্দুর রউফ, ছালেক মিয়া, বিলাল মিয়া, মিন্টু মিয়া, বিলাল মিয়া, রাজু মিয়া ও স্বপন মিয়াসহ ২৫ জনকে গুরুতর অবস্থায় হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

চেয়ারম্যান মইনুল হক আরিফ জানান, সাহেব আলীর লোকজন তার সর্মকদের বাড়ী-ঘরে হামলা করলে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।
অপরদিকে পরাজিত প্রার্থী সাহেব আলী জানান, তার এক সমর্থককে হবিগঞ্জে আসার পথে আরিফের লোকজন টিটকারী দিলে তার সমর্থকরা উত্তেজিত হয়। পরে আরিফের লোকজনও তার সমর্থকদের উপর হামলা করে।

হবিগঞ্জ সদর থানার ওসি নাজিম উদ্দিন জানান, নির্বাচনে বিজয়ী ও পরাজিত প্রার্থীর লোকজনের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ২৪ রাউন্ড বুলেট নিক্ষেপ করে। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। সেখানে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

 

বিডি প্রতিদিনি/০৬ জুন ২০১৬/হিমেল-০৮




আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow