Bangladesh Pratidin

ঢাকা, মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : ১২ জুন, ২০১৬ ১৬:২৬
সুনীল গমেজ হত্যাকাণ্ড
৭ দিনেও ক্লু না পাওয়ায় মহাসড়ক অবরোধ
নাটোর ও বড়াইগ্রাম প্রতিনিধি:
৭ দিনেও ক্লু না পাওয়ায় মহাসড়ক অবরোধ

নাটোরের বড়াইগ্রামের বনপাড়ায় খ্রীষ্টান ব্যবসায়ী সুনীল দানিয়েল গমেজকে (৬০) নৃশংসভাবে কুপিয়ে হত্যার সাতদিন পরও ঘটনার কোন রহস্য উদঘাটন করতে পারেনি পুলিশ। এর প্রতিবাদে আজ সকাল ১১টা থেকে দুপুর সোয়া ১২টা পর্যন্ত মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানববন্ধন করেছে স্থানীয় প্রায় ৫ হাজার খ্রীষ্টান নারী-পুরুষ।  

পরে তারা খুনীদের গ্রেফতার ও ফাঁসির দাবীতে স্বরাষ্টমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেছেন।  

এদিকে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার পাঠানো বিশেষ প্রতিনিধি দল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। বিকালে ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে নিহত সুনীল গমেজের বাসার অপর ভাড়াটিয়া বনপাড়া এলাকার রফিকুল ইসলামের স্ত্রী মনোয়ারা খাতুন মণিকে (৩৫) আটক করেছে ডিবি পুলিশ।
  
বনপাড়া বাইপাস মোড়ে মাহসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানববন্ধনকালে বনপাড়া প্যারিস কাউন্সিলের সহ-সভাপতি বেনেডিক্ট গমেজের সভাপতিত্বে দ্রুত রহস্য উদঘাটন ও খুনীদের গ্রেফতারের দাবী জানানো হয়। এতে বক্তব্য রাখেন বনপাড়া ক্যাথলিক চার্চের ফাদার বিকাশ হিউবার্ট রিবেরু। সমাবেশে এ দাবীর প্রতি একাত্মতা জানিয়ে অন্যান্যের মধ্যে পৌর মেয়র কেএম জাকির হোসেন, বাংলাদেশ খ্রীষ্টান এ্যাসোসিয়েশনের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি মিলন আই গমেজ, জেলা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি চিত্তরঞ্জন সাহা, জেলা আদিবাসী সংগঠণের পক্ষে নরেশ চন্দ্র সাহা এবং বোর্ণি, মথুরাপুর, ভবানীপুর, গোপালপুর খ্রীষ্টান ধর্মপল্লীর প্রতিনিধিরা বক্তব্য রাখেন।  

এর আগে তারা সুনীল গমেজসহ সাম্প্রতিককালে সন্ত্রাসী হামলায় নিহত সব সংখ্যালঘু ব্যাক্তিদের স্মরণে এক মিনিট নিরবতা পালন করেন। এ সময় এক ঘন্টারও বেশি সময় ধরে মহাসড়ক অবরোধ করে রাখায় নাটোর-পাবনা ও বনপাড়া-হাটিকুমরুল-ঢাকা মহাসড়কের উভয় পাশে হাজার হাজার বাস-ট্রাক আটকা পড়ে প্রায় ৫ কিলোমিটার দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়।  

সমাবেশে বক্তারা বলেন, সংখ্যালঘুরা এদেশে শান্তিপুর্ণ বসবাসের পাশাপাশি স্বাভাবিক মৃত্যুর গ্যারান্টি চায়। প্রকাশ্যে দিনের বেলায় সুনীল গমেজকে নৃশংসভাবে কুপিয়ে হত্যার সাতদিন পরও কোন ক্লু উদঘাটন করতে না পারায় আমরা দারুণভাবে হতাশ ও ক্ষুব্ধ। সুনীল হত্যার ঘটনায় জজ মিয়া নাটক না সাজিয়ে অবিলম্বে প্রকৃত খুনী কারা তা বের করে আইনের আওতায় আনতে হবে। অন্যথায় আরো কঠোর কর্মসূচি দেয়া হবে বলে জানিয়ে যত দিন খুনীদের বিচার না হবে তত দিন  রাজপথ ছাড়া হবে না বলে হুশিয়ারী উচ্চারণ করেন তারা।

নিহত সুনীল গমেজের বাড়িতে বিএনপির প্রতিনিধি দল:
বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা ও সাবেক মন্ত্রী নিতাই রায় চৌধুরী বলেছেন, দেশে একের পর এক সংখ্যালঘু খুন হচ্ছে, কিন্তু সরকার একটি ঘটনারও রহস্য উদঘাটন করতে পারেনি। উল্টো ব্যর্থতার দায় নিজেদের কাঁধে না নিয়ে ঘটনা ঘটার সাথে সাথে বিএনপি-জামায়াতের উপর দোষ চাপিয়ে তদন্তকে প্রভাবিত করছে। দেশের সর্বোচ্চ ব্যক্তি বলছেন তারা জানেন কারা এগুলো ঘটাচ্ছে। তাহলে তাদেরকে আটক করুন, কিন্তু তাও করছেন না। সরকারের উদাসীনতায় দেশ এখন চরম বিপর্যয়ের মাঝে পৌঁছে গেছে। অংশ্রহণমূলক নির্বাচন না থাকা এবং দেশে একদলয়ীয় শাসনব্যবস্থার কারণে দেশের এ অবস্থা। যেহেতু সংখ্যালঘুসহ টার্গেট কিলিং একটি জাতীয় সমস্যা তাই জাতীয় ঐক্যমতের ভিত্তিতে এ সমস্যার সমাধান করতে হবে।

তিনি আজ দুপুরে বনপাড়ায় সুনীল দানিয়েল গমেজকে (৬০) কুপিয়ে হত্যার ঘটনাস্থল পরিদর্শন ও নিহতের স্বজনদের সাথে সাক্ষাৎকালে এসব কথা বলেন। তিনি বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার মনোনীত প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন। এ সময় তিনি নিহত সুনীল গমেজের স্ত্রী-সন্তানদের খোঁজ নেন ও তাদের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।  

প্রতিনিধি দলে সাবেক যুগ্ন সচিব তপন মজুমদার, বিএনপির কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠণিক সম্পাদক জয়ন্ত কুমার কুন্ডু, কেন্দ্রীয় সহ-ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক এ্যাডভোকেট জন গমেজ, যুবদলের কেন্দ্রীয় যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক অমলেন্দু দাস অপু, মাগুড়ার বিএনপি নেতা মিহির কান্তি দাস, উপজেলা বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এ্যাডভোকেট আব্দুল কাদের মিয়া, সাধারণ সম্পাদক হজরত আলী, বনপাড়া পৌর আহ্বায়ক অধ্যাপক লুৎফর রহমান ও বড়াইগ্রাম পৌর সেক্রেটারী বেলাল হোসেনসহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।  

ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে সাবেক মন্ত্রী নিতাই রায় চৌধুরী সাংবাদিকদের সামনে অবলিম্বে সুনীল গমেজের খুনীদের খুঁজে বের করার দাবী জানিয়ে বলেন, আমরা দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নির্দেশে সুনীল গমেজের বাড়িতে এসেছি। বিএনপি সব সময় সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের পাশে ছিল, এখনও আছে, ভবিষ্যতেও থাকার আশ্বাস দেন।  


বিডি প্রতিদিন/১২ জুন ২০১৬/হিমেল-১৯

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow