Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : ১৫ জুন, ২০১৬ ১৭:৩৫
মোবাইল ব্যবহার থেকে বঞ্চিত বিলুপ্ত ১১১ ছিটের ৪০ হাজার বাসিন্দা
লালমনিরহাট প্রতিনিধি:
মোবাইল ব্যবহার থেকে বঞ্চিত বিলুপ্ত ১১১ ছিটের ৪০ হাজার বাসিন্দা

সঠিক সময়ে ভোটার তালিকা না হওয়ায় বিলুপ্ত ১১১টি ছিটমহলের ৪০হাজার নাগরিক মোবাইল ব্যবহার থেকে বঞ্চিত হয়ে পড়েছে। মোবাইল ব্যবহার করতে না পারায় দেশ ও দেশের বাইরে থাকা স্বজনদের সাথে যোগাযোগ করতে পারছে না বিলুপ্ত ছিটের এসব অধিবাসীরা।

বাংলাদেশের মুল ভুখন্ডের সাথে প্রায় ১ বছর আগে মিলিত হলেও এখন পর্যন্ত নাগরিক সেবা পাচ্ছেন না তারা। ছিটের বাসিন্দারা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশের মুল সেবা মোবাইল ইন্টারনেট হলেও বারবার জেলা প্রশাসনকে তাগাদা দেওয়ার পরও এসব সেবা থেকে আমরা বঞ্চিত রয়েছি।

জেলা নিবার্চন অফিস সূত্র জানিয়েছে, ১৫ জুন নতুন ভোটার তালিকা তৈরি করার কথা থাকলেও তা পিছিয়ে ২৬জুন করা হয়েছে। ২৬ জুন তথ্য সংগ্রহকারী ও সুপারভাইজার নিয়োগ করা হবে। আগামী ১৫-২১ জুলাই বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোটারের তথ্য সংগ্রহ করা হবে। ভোটারদের ছবি সংগ্রহ করা হবে ২১-২৭ জুলাই পর্যন্ত। ১ আগস্ট খসড়া ভোটার তালিকা প্রকাশ করা হবে। খসড়া ভোটার তালিকা সংশোধনী করে চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করা হবে আগামী ৪ সেপ্টেম্বর। চুড়ান্ত ভোটার তালিকা প্রকাশ ৪ সেপ্টেম্বর হলেও আইডি কার্ড হাতে পেতে সময় লাগবে আরো এক মাস। সে হিসেব অনুযায়ী আগামী নভেম্বরের আগে বিলুপ্ত এসব ছিটের অধিবাসীদের মোবাইল ও ইন্টারনেট ব্যবহার থেকে বঞ্চিতই থাকতে হবে।

বিলুপ্ত এসব ছিটমহল আন্দোলনের নেতা ময়নুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, বিলুপ্ত ১১১ ছিটের প্রায় ৪০ হাজার মানুষ ১লা জুন থেকে মোবাইল ব্যবহার করতে পারছে না, জেলা নিবার্চন অফিসকে বারবার অনুরোধ করার পরও তাদের ধীর গতির কারণে বাংলাদেশের মুল ভুখন্ডের বাসিন্দা হওয়ার পরও আজ বিলুপ্ত ছিটবাসীরা ডিজিটাল সেবা থেকে বঞ্চিত। এটা আমরা মেনে নিতে পারি না। আগামী এক মাসের মধ্যে ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত না করা হলে আবারো আন্দোলনে নামতে হবে আমাদেরকে।

বিলুপ্ত ছিটের নেতারা জানান, জেলা প্রশাসনকে আবেদন করা হয়েছিল দ্রুত ভোটার তালিকায় তাদের নাম অন্তর্ভুক্তি করা হোক। কিন্তু তা না করায় আজ এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।
লালমনিরহাট জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা একে এম ফজলুল হক বলেন, ১৫ জুন থেকে ভোটার তালিকার কাজ শুরু হওযার কথা থাকলেও নিবার্চন কমিশনের জটিলতার কারণে তা পিছিয়ে ২৬জনু করা হয়েছে। যেহেতু তারা বিলুপ্ত ছিটের নাগরিক, নতুনভাবে তারা বাংলাদেশের মুল ভুখণ্ডে যুক্ত হয়েছে। তাই তাদের ভোটার তালিকায় যুক্ত করার বিষয়টি সরকারের উচ্চ পর্যায়ের। মোবাইলের সিম নিবন্ধনে যেহেতু ভোটার আইডি আবশ্যক, তাই তাদের সাময়িক কষ্ট মেনে নিতে হবে।

বিডি-প্রতিদিন/ ১৫ জুন ১৬/ সালাহ উদ্দীন

 

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow