Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : ২৩ জুন, ২০১৬ ১৩:২২
মেয়ে হত্যার বিচার চেয়ে দ্বারে দ্বারে ঘুরছে এক মা
চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি
মেয়ে হত্যার বিচার চেয়ে দ্বারে দ্বারে ঘুরছে এক মা
স্বামীর নির্যাতনে মৃত্যুর শিকার শ্যামলী খাতুন [২২]

মেয়ে হত্যার বিচার চেয়ে দ্বারে দ্বারে ঘুরছে হতভাগিনী এক মা। মেয়েকে পিটিয়ে হত্যার পর লাশ ঝুলিয়ে রেখে বাড়িঘর ছেড়ে পালিয়ে গেছে তারা জামাইসহ শ্বশুর বাড়ির লোকেরা। এদিকে সদর মডেল থানায় হত্যা মামলা না নিয়ে ইউডি মামলা নেয়ায় চাঁপাইনবাবগঞ্জ আমলী আদালক ‘ক’ অঞ্চল-এ মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরএলাকার আলীনগর মুন্সীপাড়ার মো. বাবলু আলীর স্ত্রী আলেয়া বেগম অভিযোগ করে জানান, ৬ বছর আগে তার দ্বিতীয় মেয়ে শ্যামলী খাতুনের (২২) সাথে সদর উপজেলার বারঘরিয়া ইউনিয়নের লক্ষীপুর হুগলীপাড়া গ্রামের মোখলেসুরের ছেলে মো. মাইনুল ইসলামের বিয়ে হয়। তাদের ৫ বছর বয়সী একটি সন্তান রয়েছে। কিন্তু প্রায় ৬ মাস আগে মাইনুল ইসলাম প্রথম স্ত্রী শ্যামলী খাতুনের অনুমনি না নিয়েই শিবগঞ্জ উপজেলার শ্যামপুরে দ্বিতীয় বিয়ে করেন। এনিয়ে সংসারে অশান্তি সৃষ্টি হলে মাইনুল প্রায়ই শ্যামলীর ওপর নির্যাতন চালাতো এবং তার পিতার কাছ থকে যৌতুক হিসেবে ৩ লাখ টাকা এনে দেয়ার জন্য চাপ দিতে থাকে। কিন্তু ৪ মাসের অন্তঃস্বত্বা শ্যামলী স্বামীর এই দাবী মেনে না নেয়ায় তার ওপর নেমে আসে আরও নির্মম নির্যাতন। এরই জের ধরে গত ২৯ মে রাতে মাইনুল শ্যামলীকে বেধরক পেটাতে থাকে। একপর্যায়ে পিটুনীতে শ্যামলী মারা গেলে পরের দিন সকালে তার লাশ ঝুলিয়ে রেখে সে ফাঁসি দিয়েছে বলে শ্যামলীর বাবা-মাকে জানানো হয়। এই ঘটনার পরই মাইনুল স্বপরিবারে বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যায়। পরে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠায়।

এদিকে, নিহত শ্যামলীর মা আলেয়া বেগম আরও জানান, শ্যামলীর শরীরের বিভিন্ন অংশে এবং গলায় আগাতের চিহ্ন রয়েছে । বিষয়টি নিয়ে তিনি সদর মডেল থানায় গেলে পুলিশ হত্যা মামলা না নিয়ে আত্মহত্যা (ইউডি) মামলা গ্রহণ করেন। পরে তিনি মেয়ের বিচারের আশায় দ্বারে দ্বারে ঘুরে চাঁপাইনবাবগঞ্জ আমলী আদালক ‘ক’ অঞ্চল-এ মামলা দায়ের করন। মামলা নং ৩৯৫/১৬ (নবাব)। এ ঘটনার পর থেকেই মাইনুল ইসলামরা আত্মগোপনে রয়েছে এবং স্থানীয় এক মেম্বারের মাধ্যমে মামলা তুলে নেয়ার জন্য চাপ দিচ্ছে  বলে আলেয়া বেগম অভিযোগ করেন। মাকে হারিয়ে শ্যামলীর একমাত্র শিশুসন্তান সিয়াম (৫) বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েছে। সবসময় সে তার মাকে খুঁজে ফিরছে।

এ ব্যাপারে সদর মডেল থানার ওসি মাজহার’ল ইসলাম জানান, এ ঘটনায় ইউডি মামলা দায়ের করা হয়েছে। তবে ময়নাতদন্ত রিপোর্ট পাওয়া গেলে এবং হত্যার আলামত উল্লেখ করা হলে ইউডি মামলাটি হত্যা মামলায় পরিণত হবে।

 

বিডি-প্রতিদিন/২৩ জুন ২০১৬/শরীফ




আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow