Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : ২৩ জুন, ২০১৬ ১৬:০৮
পরকীয়ার জেরে ছোট ভাইয়ের স্ত্রীর হাতে বড় ভাইয়ের স্ত্রী খুন
আব্দুস সালাম, টেকনাফ (কক্সবাজার)
পরকীয়ার জেরে ছোট ভাইয়ের স্ত্রীর হাতে বড় ভাইয়ের স্ত্রী খুন

কক্সবাজারের টেকনাফে পারিবারিক কলহের জের ধরে বড় ভাইয়ের স্ত্রীকে উপর্যুপরি ছুরিকাঘাত করে খুন করেছেন ছোট ভাইয়ের স্ত্রী। ছোট ভাইয়ের স্ত্রীকে তালাক দেওয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে এ ঘটনা ঘটিয়েছে বলে মনে করছেন স্থানীয়রা। এ দিকে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ঘাতক নারীকে আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার ভোরে টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়নের জাদিমোরায় নিজ বাড়িতে সেহেরি খেয়ে প্রতিদিনের মতো বড় ভাইয়ের স্ত্রী মরিয়ম ঘুমিয়ে পড়েন। সকাল ৬টার দিকে ছোট ভাইয়ের স্ত্রী হাসিনা বড় জা মরিয়মের বাড়ি ঢুকে ঘুমন্ত অবস্থায় উপর্যুপরি ছুরিকাঘাত করলে তিনি চিৎকার দিয়ে ওঠেন। এসময় আশপাশের লোকজন এগিয়ে এসে হাসিনাকে আটক করে। 

এদিকে, মরিয়মকে দ্রুত উদ্ধার করে টেকনাফ উপজেলা স্থাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দিতে নেওয়া হয়। প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে কক্সবাজার হাসপাতালে নেওয়ার পথে মরিয়ম মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে সুরতহাল রিপোর্ট তৈরির পর ময়নাতদন্তের জন্য লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। স্থানীয় মেম্বার মোহাম্মদ আলী ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, স্থানীয় মৌলভী মোহাম্মদ ইলিয়াছ ও ভাই মোহাম্মদ ইউনুছ একই স্থানে সপরিবারে বসবাস করে আসছে। ছোট ভাই মোহাম্মদ ইউনুছ ৩ সন্তানের বাবা। তার স্ত্রী হাসিনা ও স্বামী ইউনুছের মধ্যে পারিবারিক কলহের সৃষ্টি হয়। স্ত্রী হাসিনা বড় জা পাঁচ সন্তানের জননী মরিয়মকে নিয়ে স্বামীর পরকীয়ার অভিযোগ এনে সমাজের গণ্যমান্য ব্যক্তি, মেম্বার ও চেয়ারম্যানের নিকট সালিশ দায়ের করে। তারা তদন্ত সাপেক্ষে এই জাতীয় কোন ধরনের তথ্য পায়নি বলে জানা যায় । এর ফলে ইউনুছ ও হাসিনার সংসারে দ্বন্দ্ব চরম আকার ধারণ করে। ইউনুছ গতকাল বুধবার সালিশে হাসিনাকে তালাক প্রদান করে এবং স্থানীয় চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে সালিশ তা কার্যকর করে। আগামী ২৫ জুন হাসিনার চলে যাওয়ার কথা ছিল। বড় জা মরিয়মের পরকীয়ার কারণে তিন সন্তানদের ফেলে তাকে স্বামীর ঘর ছাড়তে হচ্ছে বলে ক্রুদ্ধ হয়ে ওঠে এবং মরিয়মকে দেখে নেওয়ার প্রতিজ্ঞা করে। এরই জেরধরে এই নৃশংস ঘটনার সুত্রপাত বলে এলাকাবাসী ধারণা করছেন।

এদিকে, সংবাদ পেয়ে টেকনাফ মডেল থানার এসআই মাসুদ মুন্সী ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে নিহতের লাশসহ ঘাতক হাসিনাকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। পরে লাশের সুরুতহাল তৈরি করে লাশ মগে প্রেরণ করা হয়েছে। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

 

বিডি-প্রতিদিন/ ২৩ জুন, ২০১৬/ আফরোজ




আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow