Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বুধবার, ১৮ জানুয়ারি, ২০১৭

প্রকাশ : ২৪ জুন, ২০১৬ ১৭:৫১
আপডেট :
ঢাকা-মোহনগঞ্জ-ঢাকা রুটে এক জোড়া নতুন ট্রেন
রফিকুল ইসলাম রনি:
ঢাকা-মোহনগঞ্জ-ঢাকা রুটে এক জোড়া নতুন ট্রেন

ঢাকা-মোহনগঞ্জ-ঢাকা রুটে একজোড়া নতুন আন্তঃনগর ট্রেন চালু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। আগামী এক থেকে দেড় মাসের মধ্যে এই ইন্টারসিটি ট্রেন চালু করবে বাংলাদেশ রেলওয়ে। এই ইন্টারসিটি এক্সপ্রেস ট্রেন চালু হওয়ার মাধ্যমে হাওরবাসীর দীর্ঘদিনের একটি স্বপ্ন পূরণ হতে যাচ্ছে।

হাওরবাসীরা বলছেন, এই ট্রেন সংযোজনের খবর তাদের ঈদের আনন্দকে বহুগুণে বাড়িয়ে দিয়েছে। তারা আওয়ামী লীগ সরকারের প্রতি দারুন খুশী। হাওরবাসী অশেষ কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট সকল সংসদ সদস্য, রাজনীতিবিদ ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের প্রতি যাঁরা কাজটিকে সফল করতে অবদান রেখেছেন। এছাড়া হাওরবাসী বিশেষভাবে স্মরণ করছে নেত্রকোণার কৃতি সন্তান প্রধানমন্ত্রীর একান্ত সচিব-১ (অতিরিক্ত সচিব) সাজ্জাদুল হাসানকে, যিনি এটি সফল করতে বিশেষ ভূমিকা রেখেছেন বলে তারা জানিয়েছেন।  

গত বছরের নভেম্বরে প্রধানমন্ত্রীর একান্ত সচিব সাজ্জাদুল হাসান নেত্রকোণা জেলা সফর করেন। এ সময় নেত্রকোণা জেলার উন্নয়ন কর্মকাণ্ড নিয়ে নেত্রকোণার জেলা প্রশাসকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এক সভায় নেত্রকোণার সংসদ সদস্য ও যুব ও ক্রীড়া  উপমন্ত্রী আরিফ খান জয়, ওয়ারেসাত হোসেন বেলাল এমপি (বীর প্রতীক)সহ বিভিন্ন উপজেলার জনপ্রতিনিধি, গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ এবং কর্মকর্তাগণের উপস্থিতিতে এলাকার জনগণের পক্ষ হতে ঢাকা-মোহনগঞ্জ-ঢাকা রুটে আর একটি নতুন ট্রেন সংযোজনের দাবি জানান।  

উক্ত সভায় প্রধানমন্ত্রীর একান্ত সচিব-১ উপস্থিত সকলকে আশ্বস্ত করেন সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সাথে যোগাযোগ করে এ বিষয়ে তাঁর পক্ষে যা যা করা সম্ভব তার সবটুকুই তিনি করবেন।

ঢাকায় ফিরে তিনি বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক এবং রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্টদের সাথে যোগাযোগ শুরু করেন। এসময় নতুন একটি ট্রেনের প্রয়োজনীয়তার কথা তুলে ধরেন। তাঁর অনুরোধে রেলওয়ের মহাপরিচালক আমজাদ হোসেন গত মে ঢাকা থেকে হাওর অঞ্চলের শেষ স্টেশন মোহনগঞ্জ পর্যন্ত রুট রেলযোগে পরিদর্শন করেন। এসময় মোহনগঞ্জ-খালিয়াজুড়ী এবং মদন থেকে নির্বাচিত বেগম রেবেকা মমিন, এলাকার জনপ্রতিনিধি এবং গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ মোহনগঞ্জে উপস্থিত ছিলেন।  

পরিদর্শন শেষে এই রুটে একজোড়া এক্সপ্রেস ট্রেন সংযোজনের প্রয়োজনীয়তা অনুধাবন করেন তিনি। মহাপরিচালক বিষয়টিকে অত্যন্ত গুরুত্বের সাথে নেন এবং নতুন ট্রেন সংযোজনের বিষয়ে সকলকে আশ্বস্ত করেন। এরই ধারাবাহিকতায় রেলপথ মন্ত্রণালয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে ঢাকা-মোহনগঞ্জ-ঢাকা রুটে নতুন একজোড়া আন্তঃনগর ট্রেন পরিচালনার প্রস্তাব পেশ করে। প্রধানমন্ত্রী রেলপথ মন্ত্রণালয়ের এ প্রস্তাব অনুমোদন করেন। এভাবে হাওর অঞ্চলের জনগণের দীর্ঘদিনের একটি স্বপ্ন পূর্ণতা পায়। হাওরের মানুষের এগিয়ে চলা আরও একধাপ সামনে বাড়ে।

হাওরের দেশ নেত্রকোণা। ঋতুর বদলে প্রকৃতি এখানে অনন্য সৌন্দর্য্যে ধরা দেয়। প্রকৃতির রূপ যেমন রয়েছে তেমনি অপেক্ষাকৃত দূর্গম হওয়ায় এ অঞ্চলের যোগাযোগ ব্যবস্থায়ও রয়েছে অনেক সীমাবদ্ধতা। বর্তমান সরকার নেত্রকোণা তথা হাওর অঞ্চলের এই সীমাবদ্ধতা কাটিয়ে তুলে গত সাড়ে সাত বছরে এর যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নে আমূল পরিবর্তন এনেছে। সম্প্রতি ঢাকা-মোহনগঞ্জ-ঢাকা রুটে একজোড়া নতুন আন্তঃনগর ট্রেন সংযোজনের সিদ্ধান্ত এ অঞ্চলের যোগাযোগ ব্যবস্থাকে আরও একধাপ এগিয়ে নিল।

নেত্রকোনার সন্তান ও প্রধানমন্ত্রীর একান্ত সচিব-১ (অতিরিক্ত সচিব) সাজ্জাদুল হাসান বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, 'জাতির পিতার কন্যা শেখ হাসিনা জনগণের কোন আবদারই অপূর্ণ রাখেন না। এজন্যই তিনি জননেত্রী। বাংলার মানুষের সর্বশেষ আশ্রয়স্থল। হাওরের স্বচ্ছ জলের মাঝ দিয়ে দুরন্ত গতিতে ছুটে চলা এই ট্রেনে বসে যাত্রীগণ গর্বভরে বলবেন আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, তাইতো এমন গতিতে ছুটে চলতে পেরেছি। '

 

বিডি প্রতিদিন/২৪ জুন ২০১৬/হিমেল-১৩

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow