Bangladesh Pratidin

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৪ জানুয়ারি, ২০১৭

প্রকাশ : ২৯ জুন, ২০১৬ ২২:১০
আপডেট :
দক্ষিণ আফ্রিকায় নিহত যুবকের দাফন মরদেহ সম্পন্ন
নোয়াখালী প্রতিনিধি:
দক্ষিণ আফ্রিকায় নিহত যুবকের দাফন মরদেহ সম্পন্ন

দক্ষিণ আফ্রিকার জোহানেসবার্গে টাকা লেনদেনের জের ধরে গুলিতে নিহত  বেলাল হোসেন (২৯) এর মরদেহ  নোয়াখালীর সোনাইমুড়ীর বজরা শাহী জামে মসজিদের সামনের কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

বুধবার দুপুর ২ টার সময় নামাজে জানাযা শেষে মরদেহ দাফন করা হয়।

এর আগে তার মরদেহ সোনাইমুড়ী উপজেলার ছনগাঁও গ্রামের বাড়িতে আনা হলে এক হৃদয় বিদারক দৃশ্যের অবতারণা ঘটে। এলাকার শত শত নারী-পুরুষ তাকে শেষবারের মতো দেখার জন্য ভিড় করে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ২০০৬ সালে পরিবারের সচ্ছলতা আনতে দক্ষিণ আফ্রিকায় যায় বেলাল। পরে আফ্রিকার জোহানবার্গ শহরে নিজের একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান চালু করে সে। ২০০৬ সালের পর থেকে আর বাড়ি আসেনি বেলাল। চলতি বছরে বাড়িতে এসে বিয়ে করার কথা ছিল। ৬ বোন ও ২ ভাইয়ের মধ্যে বেলাল সবার বড় ছিল।

কান্না জড়িত কন্ঠে নিহত বেলাল হোসেনের পিতা আবুল কাশেম জানান, সম্প্রতি মোবাইলে বেলালের সাথে তার কথা হয়। এসময় বেলাল তাকে জানান যে, সোনাইমুড়ী পৌরসভার বানুয়ায় গ্রামের রুৃবেল নামের এক যুবক গত এক বছর আগে ব্যবসা করবে বলে তার কাছ থেকে ৪২ হাজার রিয়াল নিয়ে ছিল। কিন্তু গত কয়েকদিন আগে থেকে টাকার দেওয়ার জন্য রুবেলকে বললে রুবেল তাকে হত্যা করার হুমিক দিচ্ছে। পরে তিনি ওই টাকার জন্য রুবেলের সাথে কোন প্রকার বিরোধে না জড়ানোর জন্য বেলালকে নিষেধ করে কথা শেষ করেন।

তিনি আরো জানান, পরে ওইদিন রাতেই আফ্রিকা থেকে বেলালের সিলেটের এক বন্ধু তাকে মোবাইলে জানান টাকা লেনদেনের সূত্রধরে বেলালের নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সামনে তাকে পিস্তল দিয়ে কয়েক রাউন্ড গুলি করে পালিয়ে যায় রুবেল। এসময় বেলালের মাথা ও কানের পাশে গুলি লাগে। পরে স্থানীয়রা বেলালকে উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।  

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বেলালের হত্যাকারী রুবেলের বিরুদ্ধে সোনাইমুড়ী থানায় কয়েকটি হত্যা মামলা রয়েছে। তাই আর কোন বাংলাদেশির ক্ষতি করার আগে রুবেলকে দ্রুত আটক করে আইনের আওতায় আনার দাবি করেন নিহতের পরিবার ও স্থানীয়রা।  

বিডি-প্রতিদিন/ ২৯ জুন ১৬/ সালাহ উদ্দীন

 

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow