Bangladesh Pratidin

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৭ জানুয়ারি, ২০১৭

প্রকাশ : ২ জুলাই, ২০১৬ ০৯:১৬
আপডেট : ২ জুলাই, ২০১৬ ১০:৪৭
এবার সাতক্ষীরায় পুরোহিতকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা
মনিরুল ইসলাম মনি, সাতক্ষীরা:
এবার সাতক্ষীরায় পুরোহিতকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা

সাতক্ষীরা সদর উপজেলার শ্রী শ্রী ব্রম্মরাজপুর রাধা গোবিন্দ মন্দিরের পুরোহিত ভবসিন্ধু বরকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এ সময় মন্দিরের পাহারায় থাকা দুই চৌকিদারকে বেঁধে রাখে তারা। পুলিশ রক্তাক্ত জখম অবস্থায় পুরোহিতকে উদ্ধার করে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করেছে। তার অবস্থা আশংকাজনক। ঝিনাইদহে সেবায়েত হত্যার পরের দিনে এ ঘটনা ঘটলো।

পুরোহিতের ঘাড়, বুক ও হাতসহ শরীরের চারটি স্থানে ধারালো অস্ত্রদিয়ে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা চালানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন হাসপাতালের চিকিৎসকরা। সাতক্ষীরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এমদাদ শেখ এ খবর নিশ্চিত করেছেন। তবে এ ঘটনায় পুলিশ এখন পর্যন্ত কাউকে আটক করতে পারেনি।
আহত পুরোহিতের স্ত্রী সুমিত্রা বর এবং সাতক্ষীরা সদর থানার ওসি জানান, আজ শনিবার ভোর রাত সাড়ে ৩ টার দিকে ৫/৬ জন দুর্বৃত্ত  মন্দিরের পাহারায় নিয়োজিত দুই চৌকিদার বাবু ও ইউনুসের কাছ থেকে মোবাইল ও টর্চ লাইট কেড়ে নিয়ে মারধর করে তাদের রশি দিয়ে বেঁধে ফেলে। পরে তারা মন্দিরের একটি দরজা ভেঙে ঘরে ঢুকে পুরোহিতকে উপর্যুপরি কুপিয়ে মৃত ভেবে ফেলে রেখে চলে যায়। এ সময় পুরোহিত ভবসিন্ধু বরের স্ত্রী ও ছেলে জগনাথ বরের আত্মচিৎকারে এলাকাবাসী ঘটনাস্থলে এসে পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ আহত অবস্থায় পুরোহিত ভবসিন্ধু বরকে ( ৫০)  হাসপাতালে নিয়ে আসে।
 
ব্রম্মরাজপুর ইউপি চেয়ারম্যান মো. শহিদুল ইসলাম জানান পুরোহিত ভবসিন্ধুর বাড়ি সাতক্ষীরা সদর উপজেলার বাজুয়াডাঙ্গা গ্রামে। তিনি ওই গ্রামের হাজারি লাল বরের ছেলে। তিনি মন্দিরের একটি কক্ষে স্ত্রী সুমিত্রা বর ও পাঁচ বছরের ছেলে জগন্নাথ বরকে নিয়ে থাকতেন। তাদের সামনেই তাকে কুপিয়ে আহত করে তারা।

এদিকে পুরোহিত ভবসিন্ধু বরকে কুপিয়ে হত্যা চেষ্টার ঘটনায় সংবাদ পেয়ে ভোর সাড়ে ৬ টার দিকে পুলিশের খুলনা বিভাগের ডিআইজি এস এম মনিরুজ্জামান সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে চিকিৎসা নেওয়া আহত পুরোহিতকে দেখতে আসেন। এ সময় তিনি গণমাধ্যম কর্মীদের জানান, পুরোহিতের ঘাড়ে ও বুকে এবং হাতে ধারালো অস্ত্রের আঘাত রয়েছে। অপরাধীদের ধরতে অভিযান শুরু হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করা হবে।

তিনি বলেন, আসলে কোন জঙ্গিগোষ্টি এই হামলা চালিয়েছে কিনা সেটিও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তবে বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ। এখানে বেঁছে বেঁছে সংখ্যালঘু গোষ্টিদের উপর হামলা করা হবে সেটি কোনভাবে আইন-শৃংখলা বাহিনী ও পুলিশ ছাড় দেবে না। কঠোর হস্তে জনগনকে সাথে নিয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে মোকাবেলা করা হবে। গ্রেফতারের মাধ্যমে আইনের আওতায় নিয়ে এসে বিচার করা হবে।

বিডি-প্রতিদিন/এস আহমেদ

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow