Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ১০ জুলাই, ২০১৬ ১৭:৫৫
আপডেট : ১০ জুলাই, ২০১৬ ১৭:৫৮
হাতিয়ায় আ'লীগের দু'গ্রুপের সংঘর্ষ, ৫ পুলিশসহ অর্ধশতাধিক আহত
নোয়াখালী প্রতিনিধি:
হাতিয়ায় আ'লীগের দু'গ্রুপের সংঘর্ষ, ৫ পুলিশসহ অর্ধশতাধিক আহত

ঈদ পুর্ন মিলনী ও জঙ্গিবাদ সন্ত্রাসের প্রতিবাদে আ'লীগের সমাবেশকে কেন্দ্র করে নোয়াখালীর হাতিয়ায় উপজেলা আ'লীগের সভাপতি সাবেক এমপি অধ্যাপক ওয়ালী উল্যাহ ও আ'লীগের সাবেক এমপি মোহাম্মদ আলী সমর্থিত নেতা কর্মীরা মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া সংঘর্ষ ও গুলি বিনিময় হয়।

এ সময় হাতিয়া থানার ওসি আরিচুল হক, এস আই জাহাঙ্গীর আলম, চার কনেষ্টবলসহ অর্ধ শতাধিক নেতা কর্মী আহত হয়। আহতদের মধ্যে ১৫ জন কে গুরুতর আহত অবস্থায় হাতিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। অন্য আহতদের কে স্থানীয় ভাবে চিকিৎসা দেয়া হয়।

ঘটনাটি ঘটে রবিবার সকালে । এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত শহরে টান টান উত্তেজনা বিরাজ করছে।

জানাগেছে, উপজেলা আ'লীগের উদ্যোগে ঈদ পুর্ন মিলনী ও জঙ্গিবাদ সন্ত্রাসের প্রতিবাদে সমাবেশের আহবান করা হয়। অ্যাডভোকেট সাইফুদ্দিনের সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা আ'লীগের সভাপতি অধ্যাপক ওয়ালি উল্যাহ, বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা আ'লীগের সাধারণ সম্পাদক মহি উদ্দিন চেয়ারম্যান। বক্তব্য রাখেন চর ইশ্বরের চেয়ারম্যান আঃ হালিম আজাদ, সুক চরের চেয়ারম্যান কামাল উদ্দিন, নলচিরা ইউনিয়নের চেয়াম্যান হুমায়ন কবির বাবলু, পৌর আ'লীগের সেক্রেটারী আবুল কালাম মারজান, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি নজরুল ইসলাম রাজু, যুবলীগের সভাপতি আমিরুল ইসলাম প্রমুখ।

এ দিকে সভাস্থলে আসার পথে মোহাম্মদ আলী সমর্থিত আ'লীগের নেতা কর্মীরা দলীয় নেতা কর্মীদের উপর গুলি বর্ষণ ও হামলা চালায়। সকাল ১১টায় সোনাদিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম মালেশিয়ার নেতৃত্বে শতাধিক নেতা কর্মী সমাবেশ স্থলে আসার পথে সৌদিয়া বাজারে তাদের উপর গুলি বর্ষণ ও হামলা চালায় মোহাম্মদ আলী সমর্থিত আ'লীগের নেতা কর্মীরা।

এ সময় অর্ধশত নেতা কর্মী আহত হয়। আহতদের মধ্যে ফজর আলী(৪০) আক্তার (২২) কুদ্দুস(২০) জামাল (২৮) রুবেল (১৮) রাশেদ (২৩) সাহিদ(১৮) সুজন (২০) হক সাহেব (৩৩) সাদেক (২০) লোকমান (২২) ইউনুছ (৪০) আঃ কুদ্দুস (২৫) রবিজ উদ্দিন (৩০) ও আবুল বাসার কে হাতিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

এ ছাড়া মোহাম্মদ আলীর বাসার কাছে রাস্তা অবরোধ করে মোহাম্মদ আলী সমর্থিত নেতা কর্মীরা  দফায় দফায় হামলার ঘটনা ঘটায়। এ সময় হাতিয়া থানার ওসি এক জন এসআই ৪ কনেষ্টবল সহ আরো অর্ধশত নেতা কর্মী আহত হয়। মোহাম্মদ আলী সমর্থিত নেতা কর্মীদের বাঁধার মুখে ও নৌকা বন্ধ করে দেয়ায় নিঝুমদ্বীপের চেয়ারম্যান মেরাজ উদ্দিন সহ বেশ কিছু নেতা কর্মী সভাস্থলে আসতে পারিনি। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত শহরে টান টান উত্তেজনা বিরাজ করছে।

হাতিয়া থানার ওসি আরিচুল হক বলেন এমপি পুলের কাছে সন্ত্রাসীরা সড়ক অবরোধ করে। এ সময় অবরোধ উঠানোর চেষ্টা করলে পুলিশের উপর গুলি বর্ষণ ও ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে সন্ত্রাসীরা। এ সময় তিনি নিজে এবং আরো ৫ জন পুলিশ আহত হয়।

বিডি-প্রতিদিন/ ১০ জুলাই ১৬/ সালাহ উদ্দীন

 

 

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow