Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ১৫ জুলাই, ২০১৬ ১৪:০৪
আপডেট : ১৫ জুলাই, ২০১৬ ১৪:৩০
শোলাকিয়া পরিদর্শন করেছেন অতিরিক্ত ডিআইজি, মানববন্ধন
কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি
শোলাকিয়া পরিদর্শন করেছেন অতিরিক্ত ডিআইজি, মানববন্ধন

কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়ায় জঙ্গি হামলার স্থল পরিদর্শন করেছেন পুলিশের অতিরিক্ত ডিআইজি জাহিদুল ইসলাম ও ঐক্য ন্যাপের সভাপতি প্রবীণ রাজনীতিবিদ পংকজ ভট্টাচার্য।

আজ শুক্রবার সকালে অতিরিক্ত ডিআইজ জাহিদুল ইসলাম শোলাকিয়ায় জঙ্গি হামলার ঘটনাস্থল পরিদর্শনে যান। তিনি ঘটনাস্থল ঘুরে দেখেন। তিনি সাংবাদিকদের বলেন, 'সকলের সহযোগিতায় অত্যন্ত গুরুত্ব সহকারে ঘটনার তদন্ত চলছে। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন পুলিশ সুপার আনোয়ার হোসেন খান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সৈয়দ আবু সায়েম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোস্তাইন হোসেনসহ পুলিশের অন্যান্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

এদিকে, ঐক্য ন্যাপের সভাপতি পংকজ ভট্টাচার্য এবং সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলনের প্রেসিডিয়াম সদস্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ডক্টর আজিজুর রহমান আজ শুক্রবার দুপুরে শোলাকিয়ার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং পুলিশ ও ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শীদের সঙ্গে কথা বলেন। তারা নিহত ঝরনা রানীর বাসা যান এবং তার পরিবারের সদস্যদের সান্ত্বনা দেন।

পংকজ ভট্টাচার্য সাংবাদিকদের বলেন, 'এ ঘটনায় দোষারোপের রাজনীতি বন্ধ করতে হবে। জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে সক্ষমতা অর্জন করতে হবে। এ জন্য পুলিশসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ দিতে হবে। তিনি আরো বলেন, 'এ ঘটনা জাতির অস্তিত্ব নিয়ে টান দিয়েছে। মুক্তিযুদ্ধের ভিত্তিটা উপড়ে ফেলার জন্য তারা বদ্ধ পরিকর। তাদের পরিচয় আমরা মুক্তিযুদ্ধের সময় পেয়েছি। তারা রাজাকার-আল বদর-আল শামস ও জামায়াতে ইসলামী। এ শক্তি একটা বড় কারখানা। এ কারখানা থেকেই এসব বের হচ্ছে। এ কারখানার সঙ্গে বাইরের লোকজনও যুক্ত হয়েছে। ' তিনি বলেন, 'এটা শুধু জাতীয় বিষয় নয়, এটা আন্তর্জাতিক বিষয়। কিন্তু আমরা প্রমাণ করতে চাই, একাত্তর সালে মুক্তিযুদ্ধও ছিল আন্তর্জাতিক বিষয়। সেদিনও আন্তর্জাতিকভাবে পৃথিবীর সেরা শক্তিগুলো আমাদের বিরুদ্ধে  ছিল। যাদের পরাজিত করতে পেরেছি। তাদের দেশীয় শক্তি ছিল জামায়াতে ইসলাম, আল বদর, আল শামস। তাদেরও আমরা পরাজিত করতে পেরেছি। এরা বাংলাদেশের অস্তিত্ব মানে না। এ জন্যেই তারা শোলাকিয়ায় হামলা করেছে। ' এ সময় জেলা ন্যাপের সভাপতি অ্যাডভোকেট মোজাম্মেল হক খান রতন, জেলা সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলনের সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

অপরদিকে, শোলাকিয়াসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে জঙ্গি হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে কিশোরগঞ্জের ২১টি সাহিত্য, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন। শহরের রঙমহল চত্বরে আয়োজিত মানবন্ধনে বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ মুখে কালো কাপড় বেধে অংশগ্রহণ করেন। বেলা ১১টা থেকে ১২টা পর্যন্ত এ কর্মসূচি পালিত হয়।

বিডি-প্রতিদিন/১৫ জুলাই ২০১৬/শরীফ

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow