Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৩ মার্চ, ২০১৭

প্রকাশ : ১৯ জুলাই, ২০১৬ ১৮:৫৯
আপডেট :
শরীয়তপুরে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষে আহত ৬
শরীয়তপুর প্রতিনিধি:
শরীয়তপুরে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষে আহত ৬

শরীয়তপুরে ছাত্রলীগের দু'পক্ষের সংষর্ঘে জেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক মহসিন মাদবরসহ ছয় জন আহত হয়েছেন। মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে শরীয়তপুর সরকারি কলেজ ক্যাম্পাসে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। জেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক মহসিন মাদবর ও সদর উপজেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সবুজ তালুকদারের সমর্থকদের মধ্যে কলেজ ক্যাম্পাস ও কলেজ হোস্টেলে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, শিঘ্রই শরীয়তপুর জেলা ছাত্রলীগের কমিটি গঠন করা হবে। জেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক মহসিন মাদবর ও সদর উপজেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সবুজ তালুকদার ছাত্রলীগের সভাপতির পদ প্রত্যাশি। এ নিয়ে তাদের মধ্যে বিরোধ চলছে। শরীয়তপুর সরকারি কলেজ ক্যাম্পাস ও কলেজ হোস্টেলে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে তাদের মধ্যে প্রায়ই সংঘর্ষ হয়। সোমবার মহসিন সমর্থকরা সবুজ সমর্থক সাদ্দাম হোসেন ও নেছার আহম্মেদকে মরধর করে। এর প্রতিশোধ নেয়ার জন্য সবুজ সমর্থকরা মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে কলেজ ক্যাম্পাসে মহসিন মাদবরের উপর আক্রমন করে। তারা মহসিন মাদবর, মকবুল মাদবর, রুহুল আমীন ঢালী ও রাশেল সরদারকে কুপিয়ে আহত করে। আহতদের শিক্ষার্থীরা উদ্ধার করে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। উন্নত চিকিৎসার জন্য মহসিন মাদবরকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।

শরীয়তপুর সরকারি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি রুহুল আমীন ঢালী বলেন, সবুজ তালুকদার কলেজ হোস্টেলের ছাত্রদের মাদক গ্রহন ও মাদক বিক্রিতে উৎসাহিত করে। আমরা বিষয়টি বাধা দেই। এ কারনে সে ক্ষুব্ধ হয়ে আমাদের উপর হামলা চালায়। আমাদের জেলা আহবায়কসহ চার নেতাকে কুপিয়ে আহত করেছে।

শরীয়তপুর সদর উপজেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সবুজ তালুকদার বলেন, কলেজ হোস্টেলের ছাত্রদের মহসিন মাদবর নানান ধরনের ভয় ভীতি দেখিয়ে তার পক্ষে রাখার চেষ্টা করে। সাধারণ ছাত্ররা এর প্রতিবাদ জানায়। সে দুই জন ছাত্রকে মারধর করলে সাধারণ ছাত্ররা তাদের উপর হামলা চালায়।

শরীয়তপুর সদরের পালং মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খলিলুর রহমান বলেন, ছাত্রলীগের দু'পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে কয়েক জন আহত হয়েছে। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে পেরেছে। এ ঘটনায় এখনও কোন মামলা হয়নি।

বিডি-প্রতিদিন/এস আহমেদ

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow