Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ২০ জুলাই, ২০১৬ ১৬:৩৫
আপডেট :
শিশু কন্যাকে গলাটিপে হত্যা, সৎ মা গ্রেফতার
নিজস্ব প্রতিবেদক, বগুড়া
শিশু কন্যাকে গলাটিপে হত্যা, সৎ মা গ্রেফতার

শিশু কন্যাকে গলাটিপে হত্যার অভিযোগে সৎ মাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আজ বুধবার দুপুরে গাবতলী মডেল থানা পুলিশ নিহত শিশু কন্যা মাহফুজা খাতুনের (১০) লাশ উদ্ধারের পর তার সৎ মা রেহেনা খাতুনকে গ্রেফতার করে। গাবতলী উপজেলার সোনারায় ইউনিয়নের সরধনকুঠি গ্রামে এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে।

স্থানীয়রা জানান, সরধনকুঠি গ্রামের আব্দুল আউয়াল ঢাকায় একটি গার্মেন্টস কারখানায় কাজ করেন। সেখানে প্রথমপক্ষের স্ত্রীকে নিয়ে তিনি বসবাস করেন। গ্রামের বাড়িতে তার প্রথমপক্ষের মেয়ে মাহফুজা দ্বিতীয় স্ত্রী রেহেনা খাতুনের কাছে থাকেন।

আজ বুধবার বেলা ১১টার দিকে রেহেনা খাতুন মাহফুজাকে ডাক্তার দেখানোর কথা বলে বগুড়া শহরের নিয়ে আসে। দুপুরে বাড়ি ফেরার পর মাহফুজা গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ে। এ অবস্থায় মাহফুজাকে শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যা করা হয়। পরে রেহেনা বাড়িতে গিয়ে কান্নাজড়িত কণ্ঠে প্রতিবেশিদেরকে জানায় অসুস্থতার কারণে মাহফুজা মারা গেছে। গ্রামের লোকজনের এতে সন্দেহ হয়। তারা পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে। এসময় লাশের গলায় কালো চিহ্ন দেখে পুলিশেরও সন্দেহ হয়। পরে নিহতের সৎ মা রেহেনাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে মাহফুজাকে গলা টিপে হত্যার কথা স্বীকার করে। এ সময় পুলিশ রেহেনা খাতুনকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসে।

গাবতলী মডেল থানার এসআই আবু জাররা জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে রেহেনা জানিয়েছেন, বগুড়া শহর থেকে বাড়ি ফেরার পথে বাসের মধ্যে মাহফুজাকে বিষাক্ত গ্যাস ট্যাবলেট সেবন করায় সে। এরপর পথের মধ্যে অসুস্থ হয়ে পড়লে শিশুটিকে গলা টিপে হত্যা করে রেহেনা নিজে। হত্যার কারণ হিসেবে রেহেনা পুলিশকে বিস্তারিত জানায়নি।


বিডি-প্রতিদিন/২০ জুলাই ২০১৬/শরীফ

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow