Bangladesh Pratidin

ঢাকা, সোমবার, ২৩ জানুয়ারি, ২০১৭

প্রকাশ : ২১ জুলাই, ২০১৬ ১৬:২৯
আপডেট : ২১ জুলাই, ২০১৬ ১৬:৪০
ভারত থেকে আসা হাতিটি এখন ছিন্নার চরে
সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি:
ভারত থেকে আসা হাতিটি এখন ছিন্নার চরে

ভারতের আসাম রাজ্যের শিশুমারা পাহাড়ি এলাকা থেকে আসা বন্য হাতিটি এখন সিরাজগঞ্জের কাজিপুর উপজেলার দুর্গম চরাঞ্চল মনসুরনগর ইউনিয়নের ছিন্নার চর ঘুরে বেড়াচ্ছে। বগুড়া ও জামালপুর সীমান্ত হয়ে বুধবার বিকেলে ভেসে এসে কাজিপুর উপজেলার ছিন্নার চরের একটি পাটক্ষেতে অবস্থান নেয়। বৃহস্পতিবার বিকেল পর্যন্ত হাতিটি ছিন্নার চরেই ঘোরাফেরা করছিল।  

এদিকে, হাতিটিকে এক নজর দেখার জন্য চরাঞ্চলে শত শত নারী-পুরুষ শিশু ভিড় করছে। মাঝে মাঝে হাতিটি স্থান বদলের চেষ্টা করলেও উপস্থিত জনতার চিৎকার আর নানা শব্দে হাতিটি কিছুটা কোনঠাসা হয়ে পড়ছে। তবে সকালের দিকে হাতিটি পুরো এলাকাজুড়ে ঘুরে বেড়িয়েছে। চরাঞ্চলের বন-কলা গাছ ও জমিতে লাগানো আউশ ধানসহ নানা খাবারও খাচ্ছে। অন্যদিকে, হাতিটি ফসলী জমি নষ্ট করায় কৃষকরা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন।  

রাজশাহী বিভাাগের বন্য পশু কর্মকর্তা মনিরুল ইসলাম জানান, হাতিটি দুর্গম চরে আটকা পড়েছে। ৫ টনের অধিক ওজনের হাতিটিকে সরাতে যোগাযোগ ভাল ব্যবস্থা নেই। এতো ওজনের হাতিকে নৌকা দিয়েও স্থানান্তর করা সম্ভব নয়। তাড়াছা হাতিটিকে অজ্ঞান করা হলেও এক থেকে দেড় ঘন্টার মধ্যে আবারও জ্ঞান ফিরে আসবে। এত কম সময়ে হাতিটি সরানো সম্ভব নয়। দিনে একবারের বেশি অজ্ঞান করা হলে এটি মারা যাবে।  তবে বিষয়টি ভারতীয় কর্তৃপক্ষসহ তাদের বনবিভাগকে জানানো হয়েছে। তারা বাংলাদেশ সরকারের কাছে আসার জন্য আবেদন করেছে। এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত হলেই খুব শীঘ্রই তারা বাংলাদেশে এসে হাতিটি নিয়ে যাবেন। সে সময় পর্যন্ত হাতিটিকে সঠিক উপায়ে বাঁচিয়ে রাখার জন্য সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।  

কাজিপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সমীর কুমার কুণ্ডু জানান, হাতিটিকে কেউ যেন বিরক্ত না করে এবং হাতিটি যেন কোন মানুষের ক্ষতি করতে না পারে সে জন্য পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।  


বিডি-প্রতিদিন/ ২১ জুলাই, ২০১৬/ আফরোজ

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow