Bangladesh Pratidin

ঢাকা, সোমবার, ১৬ জানুয়ারি, ২০১৭

প্রকাশ : ২৩ জুলাই, ২০১৬ ১৫:৫৪
আপডেট :
সমুদ্রে গোসলে নেমে নিখোঁজ
অবশেষে জেলেদের জালে মিললো প্লাবনের লাশ
কলাপাড়া (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি:
অবশেষে জেলেদের জালে মিললো প্লাবনের লাশ

অবশেষে দীর্ঘ ১৮ ঘন্টা পর পর্যটন কেন্দ্র কুয়াকাটার সমুদ্রে সাঁতার কাটতে গিয়ে নিখোঁজ হওয়া প্লাবন আহম্মেদের (২০) লাশ জেলেদের জালে পাওয়া গেছে। শনিবার সকাল সাড়ে ৫ টার দিকে সৈকত থেকে প্রায় দেড় কিলোমিটার গভীর সাগরে স্থানীয় জেলে নূর জামালের জালে লাশটি আটকা পড়ে।  

এর পর তারা লাশটি আবাসিক হোটেল সাগরকন্যা সংলগ্ন সৈকতে নিয়ে এসে পুলিশে খবর দেয়। এসময় ওই শিক্ষার্থীর লাশ এক নজর দেখার জন্য পর্যটকসহ স্থানীয় শত শত নারী পুরুষ সৈকতে ভীড় জমায়। কান্নায় ভেঙ্গে পরে প্লাবনের বন্ধু নেওয়াজ। শুক্রবার নিখোঁজের পর নৌ-পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও মহিপুর থানা পুলিশ সৈকতের বিভিন্ন পয়েন্টে উদ্ধারের জন্য চেষ্টা চালিয়ে ব্যর্থ হয়।  

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, নিখোঁজ ছেলের খবর শুনে তার বাবা মোশাররফ হোসেন এবং আত্মীয় স্বজনরা শনিবার ভোর রাতে কুয়াকাটা এসে পৌঁছেন। এদিকে প্লাবনের বাবা ছেলের লাশ দেখে বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েছেন। সূরতহাল রির্পোট ও আইনী প্রক্রিয়া শেষে সকাল সাড়ে ৯ টার দিকে ছেলের লাশ নিয়ে মাগুরা সদর থানার বেল মোড় গ্রামের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয় তার বাবা।

প্লাবনের মামা মো.সেলিম জানান, তিন ভাই বোনের মধ্যে প্লাবন মেঝো। সে এই বছর মাগুরা হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ থেকে মানবিক বিভাগে এইচএসসি পরীক্ষা দিয়েছে। বড় বোন কবি নজরুল কলেজে নাট্যতত্ত্ব বিভাগের শিক্ষার্থী। ছোট ভাই শ্রাবন তার ছয় বছরের বড়। প্লাবনের বাবা যশোর নোয়া পাড়ায় আকিজ গ্রুপ কোম্পানীর একজন কর্মকর্তা হিসেব কর্মরত রয়েছেন। নিখোঁজের খবর শুনে মা রত্না হোসেন বার বার মুর্ছা যাচ্ছেন বলে জানিয়েছেন সেলিম।

মহিপুর থানার ওসি এসএম মাকসুদুর রহমান জানান, লাশ উদ্ধার হয়েছে। আইনী প্রক্রিয়া শেষে প্লাবন আহমেদের লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।  

উল্লেখ্য, শুক্রবার দুপুরে টিউব নিয়ে একসঙ্গে দুই বন্ধু অন্যান্য লোকজনের সাথে কুয়াকাটা সমুদ্রে সাঁতার কাটতে নামে। এ সময় ঢেউয়ের আঘাতে প্লাবনের হাত থেকে টিউব ছুটে গেলে সে নিখোঁজ হয়।  

 

বিডি প্রতিদিন/২৩ জুলাই ২০১৬/হিমেল-০২

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow