Bangladesh Pratidin

ঢাকা, মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : ৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১২:৫৫
সীমান্তে কড়াকড়ি : কোরবানিতে পশু সংকটের আশঙ্কা
চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি
সীমান্তে কড়াকড়ি : কোরবানিতে পশু সংকটের আশঙ্কা

আড়াই মাস আগেও করিডোরের মাধ্যমে চাঁপাইনবাবগঞ্জে ভারত থেকে প্রচুর গরু এসেছে। কিন্তু সীমান্তে বিজিবি ও বিএসএফের কড়াকড়ির কারণে আড়াই মাস ধরে গরু আসা প্রায় বন্ধ হয়ে যাওয়ার উপক্রম হয়েছে।

এর প্রভাব পড়েছে সীমান্তের পশু হাট ও খাটালের ওপর। বেকার হয়ে পড়েছেন গরু ব্যবসার সাথে সংশ্লিষ্ট প্রায় ১০ হাজার মানুষ।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, সীমান্ত পেরিয়ে মাঝে মধ্যে হাতেগোনা কয়েকটি গরু আসলেও এখন তা পুরোপুরি বন্ধ রয়েছে। এতে করে এবার কোরবানীর ঈদে বেশি দামে দেশি গরু কিনতে হবে। আর বিজিবি বলছে সীমান্ত দিয়ে বৈধপথে গরু নিয়ে আসতে কোন বাধা নেই।

জানা গেছে, চাঁপাইনবাবগঞ্জের বিভিন্ন সীমান্ত দিয়ে আনা গরু রাখা হয় জেলার জহুরপুর, জহুরপুর টেক, বাখের আলী, ওয়াহেদপুর ও মাসুদপুর খাটাল বা বিটে। কিন্তু গত রোজার ঈদের আগে ভারতীয় গরুতে ভর্তি থাকা বিশাল খাটালগুলো এখন খাঁ খাঁ করছে। সেইসময় প্রতিদিন ভারত থেকে গড়ে ৮-১০হাজার গরু আসতো এই খাটালগুলোতে। তবে এখন তা শূন্যের কোটায়।

বাখের আলী খাটালের পরিচালক আমানুল্লাহ বিশ্বাস জানান, সীমান্তে বিএসএফ ও বিজিবির কড়াকড়ির কারণে রোজার ঈদের পর থেকে কমতে থাকে ভারত থেকে গরু আসা। ফলে গরু ব্যবসার সাথে জড়িত প্রায় ১০হাজার মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়েছেন। এবার গরু কম আসায় আসন্ন কোরবানীর ঈদে দেশি গরু বেশি দামে কিনতে হবে। ব্যবসায়ীদের অভিযোগ মাঝে মধ্যে দু’একটি গরু আসলেও কাষ্টমস কর্তৃক ছাড়পত্র না পাওয়ায় পশু হাটগুলোতে বেচা-কেনার উপরও প্রভাব পড়ছে।

৯বিজিবির অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল এসএম আবুল এহসান বলেন, বিজিবি সীমান্তে কঠোর নিরাপত্তাব্যবস্থা গ্রহণ করলেও বৈধপথে গরু আনা-নেয়ার ক্ষেত্রে তাদের পক্ষ থেকে কোনো বাধা নেই। তবে সীমান্ত নিরাপত্তা ও হত্যা ঘটনা রোধকল্পে অবৈধভাবে গরু আনা যাবে না।

 

বিডি প্রতিদিন/ ০৩ সেপ্টেম্বর ২০১৬/ ফারজানা

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow