Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : ৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৮:০৩
নোয়াখালী পৌরসভার জায়গায় নির্মানাধীন ১৪০ দোকান উচ্ছেদ
নোয়াখালী প্রতিনিধি:
নোয়াখালী পৌরসভার জায়গায় নির্মানাধীন ১৪০ দোকান উচ্ছেদ

নোয়াখালী পৌরসভার পুরাতন ভবন ও পৌরহলের জায়গায় অপরিকল্পিতভাবে নির্মাণাধীন ১৪০টি দোকানঘর উচ্ছেদ করেছেন ভ্রাম্যমান আদালত। রবিবার নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মো. বরমান হোসেনের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমান আদালত এই উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করেন।

এ সময় বুলডোজার দিয়ে দোকানঘরগুলো গুড়িয়ে দেওয়া হয়।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, বিএনপি নেতা হারুনুর রশিদ আজাদ মেয়র থাকাকালে গত বছরের জুলাই মাসে পুরাতন পৌরভবন পরিত্যক্ত ঘোষণা করে ভবনটি ভেঙে সেখানে দোকানঘর নির্মাণ কাজ শুরু করেন। তখন প্রত্যেক দোকান মালিক থেকে ঘর বরাদ্দের জন্য একলাখ টাকা ব্যাংক ড্রাফ গ্রহণ করে পৌর কর্তৃপক্ষ। গত ২৫ মে পৌরসভার নির্বাচনে আওয়ামী লীগের সহিদ উল্লাহ খান সোহেল মেয়র নির্বাচিত হন। এরপর তিনি এই দোকানঘর নির্মাণ কাজ স্থগিত করে দেন। পরে পৌর কর্তৃপক্ষ জেলা প্রশাসনকে অপরিকল্পিতভাবে নির্মাণাধীন দোকানঘর উচ্ছেদের জন্য অনুরোধ জানায়।

মেয়র সহিদ উল্লাহ খান সোহেল জানান, সাবেক মেয়রের সময়ে পৌরসভার পুরাতন ভবন ভেঙে সেখানে অনিয়মতান্ত্রিক ও অপরিকল্পিতভাবে দোকানঘর নির্মানের জন্যে জায়গা বরাদ্দ দেওয়া হয়। বর্তমান পৌর পরিষদ পৌরসভার স্বার্থ ক্ষুন্ন করে এবং নাগরিক সমাজের আপত্তিকে উপেক্ষা করে দেওয়া ওই বরাদ্দ বাতিল করে সেখানে পৌর টাওয়ার নির্মাণের পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে। এখানে মিলনায়তন ও অফিসের পাশাপাশি পূর্বে যারা দোকানঘর বরাদ্দ পেয়েছে তাদেরকেও বরাদ্দ দেওয়া হবে।

প্রসঙ্গত, জেলার সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডের মিলনমেলা হিসেবে পরিচিত ঐহিত্যবাহী পৌরহলটি ভেঙে সেখানে দোকানপাট নির্মাণের প্রতিবাদ ও হল নির্মাণের দাবি জানিয়ে আসছে সংস্কৃতিকর্মী ও নাগরিক সমাজ।

বিডি-প্রতিদিন/এস আহমেদ

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow