Bangladesh Pratidin

ঢাকা, সোমবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : ৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৬:৪০
বগুড়ায় বেড়েছে দেশি গরুর চাহিদা
নিজস্ব প্রতিবেদক
বগুড়ায় বেড়েছে দেশি গরুর চাহিদা

বগুড়ায় ঈদের প্রস্তুতি শুরু হয়েছে। জেলার বিভিন্ন হাটে ক্রেতা বিক্রেতার ভীড়ও আগের থেকে বেশি। হাটগুলোতে এবার কোরবানি যোগ্য দেশীয় গরু-ছাগলের ব্যাপক আমদানি হয়েছে। জেলার খামারিরা এবার ৫ লাখ ৭৪ হাজার ৫৬৩ টি গবাদি পশু কোরবানি যোগ্য করে তুলেছে।  

মুসলমানদের বৃহৎ এ ধর্মীয় উৎসবে গরু ছাগলসহ অন্যান্য পশু কোরবানী করা হয়ে থাকে। আর এ করাণেই ঈদের আগের দিন পর্যন্ত কোরবানীর পশু ক্রয়-বিক্রয় হয়ে থাকে বগুড়ার হাট-বাজারগুলোতে। গত বছর হাটগুলোতে ভারতীয় গরু কম সরবরাহ থাকায় বেশি দামে গরু কেনাবেচা হয়। ভারতীয় গরু কম সরবরাহের কারণে জেলায় দেশীয় জাতের গরুর চাহিদা বেড়ে যায়। গত বছরের এ চাহিদা মাথায় রেখে খামারিদের মাঝে গরু লালন পালনের ইচ্ছেও বেড়ে যায়।  বেশি লাভবান হওয়ার আশায় খামারিরা এবার গরুগুলো হাটে তুলতে শুরু করেছে। কোরবানী উপলক্ষে জমে উঠেছে   বগুড়ার হাটগুলো। ধাপসুলতানগঞ্জ হাট, শহরের বনানী হাট, কালীতলা হাট, মহাস্থান হাট, বুড়িগঞ্জ, জয়বাংলা, পল্লীমঙ্গল হাটে গরু ছাগল কেনাবেচা শুরু হয়েছে। গতকাল সোমবার বগুড়া সদরের সুলতানগঞ্জ হাটে গরুর হাটে দেশি গরুর বিপুল আমদানি দেখা গেছে।  

জানা যায়, এবার কোরবানির হাটে ক্রেতারা বেশি কিনছেন দেশিগরু। ৩০ হাজার থেকে লাখ টাকার উপরেও গতকাল গরু বিক্রি করতে দেখা গেছে। ছাগলের বাজারে দেশীয় জাতের ছাগল দেখা গেছে বেশি। বগুড়া জেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তার কার্যালয়ে সূত্রে জানা যায়, আসন্ন ঈদুল আজহা সামনে রেখে জেলার ১২টি উপজেলার ১৮হাজার ৯৯জন খামারী ৫ লাখ ৭৪ হাজার ৫৬৩ টি গবাদি পশু কোরবানি যোগ্য করে তুলেছেন।  

বগুড়া জেলা প্রাণীসম্পদ কর্মকর্তা ডা.   আ.ম. শফিউজ্জামান আশা প্রকাশ করেন, এবার কোরবানির পশুর কোন সঙ্কট হবে না।   বগুড়াবাসী দেশীয় পশু  দিয়েই তাদের কোরবানির কাজ সম্পন্ন করতে পারবেন। তিনি আরো জানান, জেলায় প্রায় ৩ লাখ কোরবানির পশুর চাহিদা রয়েছে। এর বিপরীতে খামারিরা এবার ৫ লাখ ৭৪ হাজার ৫৬৩ টি গবাদি পশু কোরবানি যোগ্য করে তুলেছে।

বিডি-প্রতিদিন/এ মজুমদার

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow