Bangladesh Pratidin

ঢাকা, সোমবার, ২৩ জানুয়ারি, ২০১৭

প্রকাশ : ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২১:১২
আপডেট :
আলট্রাসনোর ভুল রিপোর্টকে দায়ী করছে পরিবার
একসঙ্গে চার সন্তান, দুই নবজাতকের মৃত্যু
অনলাইন ডেস্ক
একসঙ্গে চার সন্তান, দুই নবজাতকের মৃত্যু

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার সরিষা ইউনিয়নের মাছিমপুর গ্রামে একসঙ্গে চারসন্তানের জন্ম দিয়েছেন নার্গিস আক্তার (২৬) নামের এক নারী। রবিবার বিকেলে নিজ বাড়িতেই চারটি ফুটফুটে পুত্র সন্তানের জন্ম দেন তিনি। তবে জন্মের পরই দু'টি নবজাতকের মৃত্যু হয়েছে।

নার্গিস একই ইউনিয়নের এনায়েতনগর গ্রামের মকবুলের ছেলে রতন মিয়ার স্ত্রী। তবে স্বামীর সঙ্গে বনিবনা না হওয়ায় গত ছয় মাস ধরে পিতা আবদুর রাজ্জাকের বাড়িতে থাকছেন নার্গিস।

এদিকে দুই নবজাতকের মৃত্যুর জন্য ডায়াগনোস্টিক সেন্টারের ভুল রিপোর্টকে দায়ী করেছেন নার্গিসের পিতা দিনমজুর আবদুর রাজ্জাক। তিনি বলেন,  ঈশ্বরগঞ্জের একটি ডায়াগনোস্টিক সেন্টারে গত ১৪ জুলাই মেয়ের আলট্রাসনোগ্রাম করাই।   সেখান থেকে বলা হয় মেয়ের গর্ভে দুটি সন্তান। এরপর গত ১১ আগস্ট ময়মনসিংহের একটি ডায়াগনোস্টিক সেন্টারে আলট্রাসনোগ্রাম করালে তারা জানায় তিনটি সন্তান।   কোনটিকে বিশ্বাস করবো বুঝতে পারিনি। পরীক্ষায় চার সন্তানের বিষয়টি ধরা পড়লে মেয়েকে হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করাতাম।

তবে ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডা. আরেফিন বলেন, দুটি ডায়গনোস্টিক পরীক্ষায় দুই ধরণের রিপোর্ট আসায় অভিভাবকদের উচিৎ ছিল ওই নারীকে মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া। অভিভাবকদের অবহেলার কারণেই জন্মের পর দু'টি শিশুর মৃত্যু হয়েছে।

এদিকে, একসঙ্গে জন্ম নেওয়া চার নবজাতককে দেখতে বিকেল থেকেই বাড়িতে ভিড় জমাচ্ছে উৎসুক মানুষ। বাড়ির বারান্দায় মৃত দুই শিশুর দেহ রাখা রয়েছে। ভেতরে জীবিত দুই সন্তানকে আকড়ে শুয়ে আছেন নার্গিস।

এদিকে সন্তানের বাবা হওয়ায় খুশি রতন মিয়া। তিনি বলেন, সংসারে মনমালিন্য থাকলেও এখন সন্তানদের দিকে তাকিয়ে সব মিটমাট করে ফেলব। সূত্র: সমকাল

বিডি-প্রতিদিন/এস আহমেদ

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow