Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বুধবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৭:৩৭
সিরাজগঞ্জের পাঁচঠাকুরীতে যমুনার ভাঙন
সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি:
সিরাজগঞ্জের পাঁচঠাকুরীতে যমুনার ভাঙন

যমুনা নদীর সিরাজগঞ্জর সদর উপজেলার ছোনগাছা ইউপির পাঁচঠাকুরী পয়েন্টে ব্যাপক ভাঙন শুরু হয়েছে। গত রাত থেকে বিকেল পর্যন্ত প্রায় ২শ’মিটার এলাকা নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে।

 

এদিকে ভাঙন অব্যাহত থাকলেও ভাঙন রোধে ব্যবস্থা নেয়া তো দুরের কথা- পাউবো’র কোন কর্মকর্তা ভাঙন কবলিত এলাকা পরিদর্শন পর্যন্ত করেননি। এ নিয়ে নদী তীরবর্তী মানুষের মধ্যে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে।

পাউবো সূত্রে জানা যায়, যমুনা নদীর ভাঙন থেকে পাঁচঠাকুরী এলাকা রক্ষায় ২০১৪ সালে প্রায় ১৪ কোটি টাকা ব্যয়ে তীর রক্ষা বাঁধ নির্মাণ করেন। কিন্তু ওই সাইটের দায়িত্ব থাকা উপ-সহকারী প্রকৌশলী রনজিত কুমার সাহার মদদে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার করায় ২০১৫ সালের বন্যায় বাঁধটি ভেঙ্গে যায়। এরপর থেকে সেটি আর মেরামতের উদ্যোগে নেয়া হয়নি। এ অবস্থায় চলতি বছরের বন্যা মৌসুমের শুরুতেই পাঁচঠাকুরী পয়েন্টে ভাঙন শুরু হয়। সে সময় পাউবো জিওব্যাগ ফেলে ভাঙন নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করে। কিন্তু গত শনিবার রাত থেকে ওই এলাকায় পুনরায় ভাঙন শুরু হয়েছে। শনিবার রাত থেকে রবিবার বিকেল পর্যন্ত প্রায় ২শ মিটার এলাকা বিলীন হয়ে যায়।  

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, রাতে নদীতে ভুড়ভুড়ি কাটতে শুরু করে। পরে মুহুর্তের মধ্যেই ভাঙন শুরু হয়। ভাঙনে বাঁশঝাড় ও গাছপালা নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যায়। ভাঙনরোধে রবিবার বিকেলে পর্যন্ত পাউবো কোন ব্যবস্থা গ্রহন করেনি। এমনকি কোন কর্মকর্তা বা স্থানীয় জনপ্রতিনিধি কেউ ভাঙন এলাকা পরিদর্শনও করেনি। এ সময় আরেক বৃদ্ধ জানান, এ পর্যন্ত নয় বার বাড়ি ভাঙ্গা পড়েছে। এবার ভাঙলে দশ বার হবে। আর পারছিনা। সরকার যদি ব্যবস্থা গ্রহণ না করে তবে নিঃস্ব হয়ে পড়ব।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-সহকারি প্রকৌশলী রনজিত কুমার অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, ২০১৫ সালের বাঁধটি ভেঙ্গে যায়। এরপর চলতি বছর বন্যার শুরুতে কিছুটা ক্ষতি হয়। তবে গতরাত থেকে যে ভাঙন শুরু হয়ে সে বিষয়ে উদ্ধর্তন কর্তৃপক্ষককে অবহিত করা হয়েছে। কর্তৃপক্ষ নিদের্শ দিলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।  

বিডি-প্রতিদিন/এ মজুমদার

 

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow