Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৮:৪০
বাগেরহাটে হত্যা মামলায় একজনের ফাঁসি, চারজনের যাবজ্জীবন
শেখ আহসানুল করিম, বাগেরহাট:
বাগেরহাটে হত্যা মামলায় একজনের ফাঁসি, চারজনের যাবজ্জীবন

বাগেরহাট সদরের শ্রীঘাট এলাকায় শাহিন শেখ নামে এক ব্যক্তিকে কুপিয়ে হত্যাসহ ডাকাতির ঘটনায় একজনকে ফাঁসি ও চারজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। সোমবার দুপরে বাগেরহাটের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. জাকারিয়া হোসেন জনাকীর্ণ আদালতে ফাঁসির দণ্ডাদেশপ্রাপ্ত আসামি সোহেল শেখের (২৬) উপস্থিতিতে এই রায় প্রদান করেন।

সোহেল শেখ বাগেরহাটের মোড়েলগঞ্জ উপজেলার সানকিডাঙ্গা গ্রামের আমির আলী শেখের ছেলে।

যাবজ্জীবন দণ্ডপাপ্ত পলাতক আসামিদের মধ্যে রয়েছে খুলনার টুটপাড়া এলাকার আল আমিন ওরফে তুহিন (২৫), একই জেলার রূপসা উপজেলার বাগমার এলাকার সোহাগ ওরফে জাহিদ (৩০) এবং শ্রীরামপুর এলাকার জসিম (৩৫), বাটিয়াঘা এলাকার মহির শেখ ওরফে নাজমুল (২৭)।

মামলার সূত্রে জানা গেছে, ২০১১ সালের ২৯ জুলাই রাতে বাগেরহাট সদর উপজেলার শ্রীঘাট গ্রামের ফুলবাড়ি এলাকায় বাগেরহাট-খুলনা মহাসড়কে একদল ডাকাত মটরসাইকেল আরোহী গৌরাঙ্গ দেবনাথকে কুপিয়ে তার মটরসাইকেল নিয়ে পালিয়ে যায়। পরে আহত গৌরাঙ্গ মোবাইল ফোনে ডাকাতির সংবাদটি তার নিকটজনদের কাছে জানালে তারা ওই রাতেই আশপাশে ডাকাত ধরার জন্য সড়ক অবরোধ করে। এক পর্যায়ে ডাকাতদল বড় পাইকপাড়া গ্রামের শাহিন শেখের বাড়িতে ঢুকে পড়ে। এ সময়ে শাহিন ডাকাতদের দেখতে পেয়ে চিৎকার দিলে তারা তাকে কুপিয়ে হত্যা করে পালাতে থাকে। এ সময়ে এলাকাবাসী ডাকাত সোহেল শেখ ও আল আমিনকে ধরে গনপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে।

এ ঘটনার পরদিন মটরসাইকেল আরোহী গৌরাঙ্গ দেবনাথ বাদি হয়ে আটক দুই ডাকাতের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা আসামিদের নামে বাগেরহাট মডেল থানায় হত্যা ও ডাকাতি মামলা দায়ের করেন। এই মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই হারুন ২০১২ সালের ৩১ মে ৫ জনের নামে আদালতে চাজশিট দাখিল করেন। আদালতের বিচারক ৭ জনের সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে সোমবার আসামি সোহেল শেখকে (২৬) ফাঁসির দণ্ডাদেশসহ ২০ হাজার টাকা জরিমানা এবং অপর ৪ আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডসহ ২০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও দুই বছরের কারাদণ্ডাদেশ প্রদান করেন।

বিডি-প্রতিদিন/এস আহমেদ

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow