Bangladesh Pratidin

ঢাকা, মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : ৪ অক্টোবর, ২০১৬ ১৭:৪৭
নিম্নাঞ্চল প্লাবিত, পানিবন্ধী রাঙামাটির ১০ উপজেলা
ফাতেমা জান্নাত মুমু, রাঙামাটি
নিম্নাঞ্চল প্লাবিত, পানিবন্ধী রাঙামাটির ১০ উপজেলা

বর্ষার প্রায় শেষ মুহূর্তে প্লাবিত হয়েছে রাঙামাটির ১০টি উপজেলার নিম্নাঞ্চল। সাম্প্রতিক টানা বর্ষণে নামা পাহাড়ি ঢলে অস্বাভাবিক হারে পানি বেড়ে গেছে। ফলে পানিবন্ধী হয়ে পড়েছে উপজেলাগুলোর হাজার হাজার পরিবার। কাপ্তাই হ্রদের পানি ঘোলা, ময়লাযুক্ত ও দূষিত হওয়ায় ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। জেলাজুড়ে এখন বিশুদ্ধ পানির তীব্র সংকট। দূষিত পানি ব্যবহারে পানিবাহিত রোগের প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে,  রাঙামাটি জেলা বাঘাইছড়ি, লংগদু, বরকল, বিলাইছড়ি, জুরাছড়ি উপজেলা ও কালাপাকুজ্জা, গুলশাখালী, বগাচতর, গাথাছড়া, ভাসান্যাদম, মাইনীমুখ, বালুখালী, আদারক ছড়া ইউনিয়ন ও সদর এলাকার শান্তিনগর, কাঠালতলী, সমতা ঘাট ও ফিসারি ঘাট, রিজার্ভ বাজার, পুরানবস্তী, জালিয়া পাড়া, পৌরকলনো এলাকায় বসবাসরত পরিবারগুলো পানিবন্ধী হয়ে মানবতর দিন কাটছে। যাতায়াতে দুর্ভোগে পড়ছে শিক্ষার্থীরাও।

লেক তীরবর্তী গ্রামের রাস্তা গৌ-চারণ ভূমি, শুকটি মাছ শুকানোর স্থানসহ মানুষের বাড়ি-ঘর ডুবে গেছে। ওই অঞ্চলের ঘর-বাড়ি ছেড়ে অন্যত্র আশ্রয় খুঁজে বেড়াচ্ছে অনেকেই। আবার অনেকে আত্মীয়-স্বজনের বাড়িতে গিয়ে আশ্রয় নিয়েছে। পানিতে  তলিয়ে গেছে কৃষকদের ফসলি জমি। রাঙামাটি শহর এলাকাতেও হ্রদের পানি উত্তোলন করে সরবরাহ করা হয়। পাহাড়ি ঢলে নেমে আসা উপড়ে পড়া গাছ-গাছালি, লতাগুল্ম ও কচুরিপানা কাপ্তাই হ্রদজুড়ে সৃষ্টি করেছে ভাসমান জঞ্জালের। ফলে তা ব্যবহার অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। এমনকি কাদাযুক্ত পানি ভূ-গর্ভে প্রবেশ করায় রিংওয়েল এবং নলকূপগুলো থেকেও ঘোলা পানি বেরিয়ে আসছে।

রাঙামাটির পৌর কলোনির বাসিন্দা গীতা দাশ অভিযোগ করে বলেন, এ এলাকায় প্রায় ৩০টি পরিবার বেশ কয়েকদিন ধরে পানিবন্দী। খাবার পানি সঙ্কট তীব্র হয়ে উঠেছে। যাতায়াতে দুর্ভোগ লেগে আছেই। কেউ-ই সাহায্যের হাত বাড়ায়নি।

এ ব্যাপারে রাঙামাটি পৌরসভা মেয়র মো. আকবর হোসেন চৌধুরী জানান, রাঙামাটি  ড্রেজিং না হওয়ায় কাপ্তাই হ্রদের তলদেশ ভরাট হয়ে গেছে। তাই বর্ষা মৌসুমে পানিবন্ধী হয়ে যায় অনেকগুলো পরিবার। পৌর এলাকায় পানিবন্ধী পরিবারগুলোর তালিকা তৈরি হচ্ছে। যথাসময়ে তাদের ত্রাণসামগ্রী দেয়া হবে। তাদের জন্য রিজার্ভ বাজারের আব্দুল আলী বিদ্যালয়টি আশ্রয় কেন্দ্র হিসেবে খুলে দেয়া হয়েছে।

 

বিডি প্রতিদিন/৪ অক্টোবর, ২০১৬/ফারজানা

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow