Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : ৪ অক্টোবর, ২০১৬ ১৮:৫৪
যশোরে প্রাইভেট শিক্ষকের বিরুদ্ধে ২ শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ
নিজস্ব প্রতিবেদক, যশোর
যশোরে প্রাইভেট শিক্ষকের বিরুদ্ধে ২ শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ

যশোরের বাঘারপাড়ায় প্রাইভেট পড়তে গিয়ে দুই শিশু তার শিক্ষকের দ্বারা ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। তার দু'জন সম্পর্কে চাচাতো বোন।

গত এক সপ্তাহ ধরে তারা ক্রমাগত এই নির্যাতন ভোগ করেছে বলে তাদের অভিযোগ।

পৈশাচিক নির্যাতনের এই ঘটনা ঘটেছে বাঘারপাড়া উপজেলার জামদিয়া ইউনিয়নের দাদপুর গ্রামে। শিশু দুটিকে মঙ্গলবার সকালে যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। খবর পেয়ে বাঘারপাড়া থানার পুলিশ অভিযুক্ত শিক্ষকের বাড়িতে গেলে আগে থেকে ছটকে পড়ায় ওই তাকে আটক করতে পারেনি পুলিশ।

ধর্ষণের শিকার একটি শিশুর বাবা বলেন, ‘আমার মেয়ে দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্রী। আর আমার ভাইয়ের মেয়ে প্রথম শ্রেণিতে পড়ে। একই গ্রামের আলতাফ হোসেনের ছেলে উচ্চ মাধ্যমিক দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র মুন্নার কাছে তারা প্রাইভেট পড়ে। প্রতিদিন বিকালে মেয়ে দু'টি মুন্নার কাছে পড়তে যেতো। ৩/৪ দিন ধরে মেয়ে দু'টি প্রাইভেট পড়তে যেতে রাজি হচ্ছিল না। ঘটনা না জানার কারণে পরিবার থেকে মেয়ে দু'টিকে পড়তে যেতে বাধ্য করা হয়। এক পর্যায়ে সোমবার সন্ধ্যায় তারা মা ও চাচির কাছে ধর্ষণের ঘটনা খুলে বলে’।

মেয়ের বরাত দিয়ে তিনি আরও বলেন, শিক্ষক মুন্না তাদের গলায় ছুরি ধরে প্রতিদিন ধর্ষণ করতো। এ কারণে তারা অসুস্থ হয়ে পড়েছে।

যশোর জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, মেয়ে দু'টিকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের কয়েকরকম ডাক্তারি পরীক্ষা করা হবে। তারপর বিস্তারিত বোঝা যাবে।

এ বিষয়ে বাঘারপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ছয়রুদ্দিন আহমেদ বলেন, অভিযোগটি শোনার পর শিক্ষক মুন্নাকে আটক করার জন্য এসআই তরুণকে দাদপুর গ্রামে পাঠানো হয়। তবে তার আগেই মুন্না ও তার পরিবারের লোকজন বাড়ি ছেড়ে পালিয়েছে। তাকে আটকের চেষ্টা চলছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

বিডি-প্রতিদিন/০৪ অক্টোবর, ২০১৬/মাহবুব

 

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow