Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : ৬ অক্টোবর, ২০১৬ ২০:৫২
শিশুছাত্রকে নির্যতানের অপরাধে শিক্ষকের ৬ মাসের সশ্রম কারাদণ্ড
ঝালকাঠি প্রতিনিধি:
শিশুছাত্রকে নির্যতানের অপরাধে শিক্ষকের ৬ মাসের সশ্রম কারাদণ্ড

শিশু শিক্ষার্থীকে শারীরিক নির্যাতনের অভিযোগে নিরঞ্জন হালদার নামে এক শিক্ষককে ৬মাস সশ্রম কারাদণ্ড ও এক হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো একমাসের কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার দুপুরের ঝালকাঠি সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মো. হুমায়ুন কবির (১৯৭৪ সনের ৩৪ধারায় শিশুর উপর নিষ্ঠুরতা) এ রায় প্রদান করেন।
রায় ঘোষণার সময় আসামি নিরঞ্জন আদালতে উপস্থিত ছিল। দণ্ডপ্রাপ্ত নিরঞ্জন হালদার কাঁঠালিয়া উপজেলার দক্ষিণ চেঁচরী জমাদ্দার হাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক এবং বাঁশবুনিয়া গ্রামের মৃত নিকুঞ্জ হালদারের ছেলে।
মামলা সূত্রে জানা গেছে, ২০১৩ সনের ১৮ ফেব্রুয়ারি বাঁশবুনিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেণির বিজ্ঞান ক্লাসে জাহিদ হোসেনকে পড়া না পারার অপরাধে চুলের মুষ্টি ধরে বেঞ্চের উপরে তোলার চেষ্টা করলে ছাত্রের মাথার একাংশ চামড়াসহ চুল উঠে যায়। এতে ছাত্র জাহিদ রক্তাক্ত জখম হয়। আহত ওই ছাত্রকে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্র এবং পরে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় ছাত্রের বাবা মো. জাকির হোসেন বাদি হয়ে  শিক্ষক নিরঞ্জন হালদারকে আসামি করে ২০১৩ সনের ১এপ্রিল ঝালকাঠি সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে শিশু আইনে মামলা করেন। মামলার বাদি (ছাত্র জাহিদের বাবা) মো. জাকির হোসেন মানুষ গড়া কারিগরের নিষ্ঠুরতার অপরাধে আদালতের দেয়া রায়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন।
বাদি পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট মো. শামীম হোসেন জানান, বর্তমান সংশোধিত আইনে এ অপরাধে সর্বোচ্চ ৫ বছরের জেল ও এক লাখ টাকা জরিমানার বিধান রয়েছে। কিন্তু পূর্বের ঘটনার প্রচলিত আইনে আসামিকে সর্বোচ্চ সাজা দেয়া হয়েছে।

বিডি-প্রতিদিন/ ০৬ অক্টোবর, ২০১৬/ সালাহ উদ্দীন

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow