Bangladesh Pratidin

ঢাকা, মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : ৭ অক্টোবর, ২০১৬ ২০:৫৩
সাভারে দুই স্কুল শিক্ষককে মারধর, স্কুল বন্ধের হুমকি কাউন্সিলরের
নাজমুল হুদা , সাভার
সাভারে দুই স্কুল শিক্ষককে মারধর, স্কুল বন্ধের হুমকি কাউন্সিলরের

 

 

সাভারে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে একটি স্কুলের দুই শিক্ষককে পিটিয়ে আহত করেছে স্থানীয় কাউন্সিলর ও তার লোকজন। এর পরে ওই স্কুলে হামলা চালিয়ে আসবাবপত্র ব্যাপক ভাঙচুর করার পর স্কুলটি বন্ধ করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। শুক্রবর দুপুরে সাভারের দেওগা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করলেও কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি।

আমেনা প্রি ক্যাডেট এ্যান্ড হাইস্কুলের অধ্যক্ষ মাওলানা ফারুক আলম অভিযোগ করে বলেন, 'সাভারের রাজাশন এলাকার সিটি স্কুলের  অধ্যক্ষ সিরাজ মিয়া পূর্ব শত্রুতার জের ধরে শুক্রবার দুপুরে পাশের আমেনা প্রি ক্যাডেট এ্যান্ড হাইস্কুলের অধ্যক্ষ মাওলানা ফারুক আলমের ছেলে ও কলেজ শিক্ষার্থী ফয়সাল আলমকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে'।

পরে তার ছেলেকে পেটানোর প্রতিবাদ করলে স্থানীয় কাউন্সিলরের লোকজন ও অধ্যক্ষ সিরাজ মিয়া এবার আমেনা স্কুলের আমেনা প্রি ক্যাডেট স্কুল এ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ মাওলানা ফারুক আহমেদ ও বাংলা বিভাগের শিক্ষক তাসলিমাকে পিটিয়ে গুরতর আহত করে। এর এক পর্যায়ে সন্ত্রাসীরা আমেনা স্কুলের ভেতরে প্রবেশ করে আসবাবপত্রে ব্যাপক ভাঙচুর চালায়। এছাড়াও পরে স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর ঘটনাস্থলে পৌছে স্কুল বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়ে আসে। খবর পেয়ে সাভার মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে।

এ ব্যাপারে সিটি স্কুলের অধ্যক্ষ সিরাজ মিয়া বলেন, 'সকালের দিকে তিনি তার কর্মস্থলের উদ্দেশ্যে রওনা দেয়। এসময় ফয়সাল কয়েকজন যুবকের সাথে রাস্তায় দাড়িয়ে ধুমপান করছিলেন। এ ঘটনাকেই কেন্দ্র কওে স্থানীয় কয়েকজন লোক ওই ছেলেদেও চড়-থাপ্পর মারে। এর পরই শিক্ষার্থীর বাবা ঘটনাস্থলে এসে তার ছেলেকে মারধরের অভিযোগ তুলে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ শুরু করেন। এসময় তার সঙ্গে থাকা স্থানীয়রা প্রতিবাদ করলে তাদের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। তবে স্কুল ভাঙচুর ও বন্ধ করে দেওয়ার অভিযোগ অস্বীকার করেন'।

এছাড়াও তিনি আরো অভিযোগ করে বলেন, 'আমেনা স্কুলের অধ্যক্ষ জামায়াতের রাজনীতির সাথে জড়িত। সে তার ছেলেকে শ্বাসন না করে উল্টো আমাদের গালিগালাজ করেছে বলেও তিনি জানান'।

অন্যদিকে সাভার পৌর ৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সেলিম মিয়ার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি সংবাদটি না করার জন্য অনুরোধ করেন। এছাড়াও স্কুল বন্ধ করে দেওয়ার বিষয়টি অস্বীকার করেন।

তবে সাভার মডেল থানার সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) মাহাবুবুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, 'খবর পেয়ে সাভার মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এ বিষয়ে থানায় একটি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। এছাড়াও বিষয়টি খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বলেও তিনি জানান'।


বিডি-প্রতিদিন/৭ অক্টবর, ২০১৬/তাফসীর

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow