Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : ৮ অক্টোবর, ২০১৬ ১১:৫৩
চোরাচালানের স্বর্ণ ছিনতাইকালে ২ পুলিশ আটক
সাতক্ষীরা প্রতিনিধি
চোরাচালানের স্বর্ণ ছিনতাইকালে ২ পুলিশ আটক

গোয়েন্দা পুলিশ পরিচয়ে চোরাচালানের স্বর্ণ ছিনতাইকালে সাতক্ষীরার পাটকেলঘাটার সেনপুর বাজারে পুলিশের জালে আটকা পড়েছেন দুই পুলিশ। একই ঘটনায় আটক হয়েছেন এক সোনা চোরাচালানি।

তারা সকলেই এখন পাটকেলঘাটা থানায়। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত পুলিশ তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করছে।

পাটকেলঘাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মহিবুল ইসলাম জানান, শুক্রবার রাতে খবর পান পাটকেলঘাটার সেনপুর বাজারে সোনাসহ তিনজনকে আটক করে রেখেছে স্থানীয় জনতা। এ খবর পেয়ে পাটকেলঘাটা থানার এএসআই মুরাদ দ্রুত সেনপুর গিয়ে জনরোষ থেকে তিন জনকে উদ্ধার করেন থানায় নিয়ে আসেন। এরা হলেন যশোরের কেশবপুরের ভাটপাড়া গ্রামের সুধীর চ্যাটার্জির ছেলে বিপ্লব চ্যটার্জি, ঝিনাইদহ জেলায় কর্মরত পুলিশের এএসআই রবিউল ইসলাম পল্টু ও তার সহযোগী কনস্টেবল মারুফ হোসেন। এসময় বিপ্লবের কাছে দুই পিস স্বর্ণ ছিল বলে তাৎক্ষনিভাবে জানান ওসি।

সেনপুর  গ্রামবাসী জানান, রাতে মোটরসাইকেলে দ্রুত বেগে বাজারে আসেন তিন আরোহী। এদের একজন বিপ্লব চ্যাটার্জি ‘আমাকে বাঁচান’ বলে চিৎকার দেন। বাজারের লোকজন এগিয়ে এসে কোনো কিছু না বুঝেই গনপিটুনি শুরু করে দেয়।  

জানা গেছে, বিপ্লব স্বর্ণ নিয়ে ভারতে যাবার পরিকল্পনায় খুলনার সোনাডাঙ্গা থেকে বাসে চড়েন। এ সময় এএসআই রবিউল ইসলাম পল্টু ও  কনস্টেবল মারুফ নিজেদের গোয়েন্দা পুলিশ পরিচয়ে তাকে বাস থেকে নামান। পরে তাকে একটি মোটরসাইকেলে তুলে নিয়ে তারা চলে আসেন সাতক্ষীরার পাটকেলঘাটা অভিমুখে। স্বর্ণ ছিনতাই করে নেয়ার লক্ষ্যে তারা তাকে সেনপুর বাজারের দিকে নিয়ে আসেন। এ সময় বিপ্লব বাঁচাও বলে চিৎকার দিলে গ্রামবাসী তিনজনকেই গনপিটুনি দেয় । পরে তাদেরকে পুলিশের হাতে তুলে দেয়া হয়।

এএসআই রবিউল ইসলাম পল্টু পাটকেলঘাটার রফিকুল ইসলামের ছেলে। তিনি ঝিনাইদহ জেলার  সদর  থানায় চাকুরিরত। তার বড় ভাই স্কুল শিক্ষক আবদুর রব পলাশ জানান, রবিউল ইসলাম ঢাকা থেকে সাক্ষী দিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন। এরপর তিনি স্বর্ণের খবর জানতে পেরে বিপ্লবকে ধরে নিয়ে সেখানে যাচ্ছিলেন। এ সময় তারা সবাই গণরোষের সম্মুখীন হন।

পাটকেলঘাটা থানায় ওসি মহিবুল ইসলাম জানন, দুই পুলিশ সদস্যসহ তিন জনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। বিষয়টি জিজ্ঞাসাবাদ শেষে নিশ্চিত হওয়া যাবে প্রকৃত ঘটনা।


বিডি প্রতিদিন/৮ অক্টোবর, ২০১৬/ফারজানা

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow