Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : ১৭ অক্টোবর, ২০১৬ ১৪:১৯
আওয়ামী লীগের সম্মেলনে যোগ দেবেন মির্জাপুরের ১৯ কাউন্সিলর
এস এম এরশাদ, মির্জাপুর (টাঙ্গাইল):
আওয়ামী লীগের সম্মেলনে যোগ দেবেন মির্জাপুরের ১৯ কাউন্সিলর

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ২০তম জাতীয় সম্মেলনে টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার তিন সহোদরসহ ১৯ জন জেলা ও উপজেলা থেকে কাউন্সিলর হিসেবে যোগ দেবেন বলে জানা গেছে। এছাড়া ১৫ জন ডেলিগেট ও প্রায় দুই শতাধিক কর্মী ও সমর্থক জাতীয় কাউন্সিলে অংশগ্রহণ করবে।

টাঙ্গাইল জেলা আওয়ামী লীগ সম্মেলনকে কেন্দ্র করে উপজেলা ও জেলা থেকে কাউন্সিলরদের নামের তালিকা চূড়ান্ত করেছেন। সম্মেলনে কাউন্সিলর হিসেবে এ উপজেলার ১৯ জনের নাম রয়েছে বলে উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রস্তাবিত কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ ওয়াহিদ ইকবাল, শিক্ষা ও মানবসম্পদ সম্পাদক তৌফিকুর রহমান তালুকদার ও দপ্তর সম্পাদক জহিরুল ইসলাম জহির জানিয়েছেন।  

টাঙ্গাইল জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের প্রশাসক ফজলুর রহমান ফারুক মির্জাপুর উপজেলার কাউন্সিলর হিসেবে সম্মেলনে অংশ নেবেন।  

এদিকে, সম্মেলনের সফলতা কামনা করে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের মির্জাপুর উপজেলার গোড়াই ক্যাডেট কলেজ এলাকা থেকে জামুর্কী পর্যন্ত প্রায় ১৮ কিলোমিটার সড়কের দুই পাশে উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের পক্ষ থেকে ব্যানার ফেস্টুন লাগানো হচ্ছে।

আগামী ২২ ও ২৩ অক্টোবর আওয়ামী লীগের ২০তম জাতীয় সম্মেলন ঢাকায় অনুষ্ঠিত হবে। এবারের সম্মেলনের বাড়তি আর্কষণ বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছেলে সজিব ওয়াজেদ জয় রংপুর জেলা, মেয়ে সায়মা হোসেন ওয়াজেদ পুতুল ও তার স্বামী খন্দকার মাশরুর হোসেন মিতু ফরিদপুর জেলা, শেখ রেহানা ঢাকা দক্ষিণের ও তার ছেলে রেদওয়ান সিদ্দিক ববি ঢাকা মহানগর উত্তরের কাউন্সিলর হিসেবে সম্মেলনে যোগ দিচ্ছেন। এ কারণে মির্জাপুর উপজেলার কাউন্সিলর, ডেলিগেটর ও নেতাকর্মীদের মধ্যে বাড়তি আনন্দ ও উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে।

সম্মেলনে কাউন্সিরর হিসেবে মির্জাপুরের কৃতি সন্তান টাঙ্গাইল জেলা পরিষদের প্রশাসক জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক সংসদ সদস্য ফজলুর রহমান ফারুক, মির্জাপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি টানা তৃতীয়বারের এমপি মো. একাব্বর হোসেন, মির্জাপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মীর এনায়েত হোসেন মন্টু,  বড় ভাই টাঙ্গাইল জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও জেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি মীর দৌলত হোসেন বিদ্যুৎ ও ছোট ভাই মির্জাপুর উপজেলা আওযামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মীর শরীফ মাহমুদ।

এছাড়া জেলা আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক এলেন মল্লিক, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য  মেজর (অব.) খন্দকার এম এ হাফিজ, মীর ওয়াদুদ ও সালমা সালাম উর্মি, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি খন্দকার মোফাজ্জল হোসেন দুলাল, মির্জাপুর পৌরসভার মেয়র উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক সাহাদৎ হোসেন সুমন, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক এস এম মোজাহিদুল ইসলাম মনির, যুগ্ম সম্পাদক আব্বাস বিন হাকিম, সাংগঠনিক সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম সিরাজ, আবু রায়হান সিদ্দিকী, সৈয়দ ওয়াহিদ ইকবাল, শিক্ষা ও মানব সম্পদ বিষয়ক সম্পাদক তৌফিকুর রহমান তালুকদার রাজীব, উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রস্তাবিত কমিটির দপ্তর সম্পাদক জহিরুল ইসলাম জহির ও উপজেলা আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আমিনুর রহমান হুমায়ুন।  

এছাড়া উপজেলার ১টি পৌরসভা ও ১৪টি ইউনিয়ন থেকে ১৫ জন ডেলিগেটর ও দুই শতাধিক নেতাকর্মী সম্মেলনে যোগ দেবেন।

মির্জাপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের (প্রস্তাবিত কমিটির) সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ ওয়াহিদ ইকবাল বলেন, এবারের সম্মেলনের বাড়তি আকর্ষণ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নাতী সজিব ওয়াজেদ জয়, পুতুল ও ববির কাউন্সিলর হিসেবে যোগদান।

মির্জাপুর পৌরসভার মেয়র ও উপজেলা আওয়ামী লীগের (প্রস্তাবিত কমিটির) যুগ্ম সম্পাদক সাহাদৎ হোসেন সুমন ও সাংগঠনিক সম্পাদক আবু রায়হান সিদ্দিকী বলেন, সম্মেলনের সফলতা কামনা করে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের দুই পাশে ব্যানার ফেস্টুন লাগানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

 

বিডি-প্রতিদিন/ ১৭ অক্টোবর, ২০১৬/ আফরোজ

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow