Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : ২১ অক্টোবর, ২০১৬ ১৮:৩১
বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে কিশোরীকে গণধর্ষণ
জাহাঙ্গীর আলম হানিফ, রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ):
বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে কিশোরীকে গণধর্ষণ

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার ভুলতা ইউনিয়নের নাহাটি এলাকায় বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে এক কিশোরীকে গণধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। গণধর্ষণের অভিযোগে ছয়জনকে আসামি করে ওই কিশোরী বাদী হয়ে গতকাল রাতে একটি মামলা দায়ের করেছেন। এ ঘটনায় ৪ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃতরা হলো, উপজেলার পাঁচাইখা এলাকার সিদ্দিকুর রহমানের ছেলে হারুন মিয়া (২০), আনু মিয়ার ছেলে মহিবুর রহমান (২৩), মৃত ইগু মিয়ার ছেলে রিপন মিয়া (২১) ও মাঝিপাড়া এলাকার রাহাতুল (২৪)।  

রূপগঞ্জ থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) জসিম উদ্দিন জানান, নাহাটি এলাকার কারখানায় এক কিশোরী এক বছর ধরে কাজ করে আসছে। ওই কারখানার পিএম হারুন মিয়ার সঙ্গে ওই কিশোরীর প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। গত ৪ মাস পূর্বে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে কারখানার ভেতরেই হারুন কিশোরীকে কয়েকবার ধর্ষণ করে। এরপর হারুন মিয়া তার সহযোগী রিপন ও মহিবুরকে দিয়ে ওই কিশোরীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করায়। গত ১৫ দিন আগেও কিশোরীকে ভয়ভীতি দেখিয়ে মাঝিপাড়া এলাকায় নিয়ে গণধর্ষণ করে তারা। আর এ কাজে সহযোগিতা করে হিমেল, জুয়েল ও রাজিব নামে আরো তিনজন। প্রাণের ভয়ে ওই কিশোরীর কাউকে কিছু বলেনি।
গত ১৯ অক্টোবর রাত ৯টার দিকে হারুন মিয়া, মহিবুর রহমান, রিপন মিয়া, জুয়েল, হিমেল, রাজিব, রাহাতুল কারখানায় প্রবেশ করে ওই কিশোরীকে জোরপূর্বক গণধর্ষণের চেষ্টা চালায়। কারখানার মালিক শরীফ ভূইয়া বিষয়টি বুঝতে পেরে ধর্ষণের কাজে বাঁধা প্রদান করে। এ সময় শরীফ ভূইয়াসহ অন্যান্য কর্মচারীদের হুমকি দিয়ে তারা চলে যায়। এ ঘটনায় ৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।  

বিডি প্রতিদিন/এ মজুমদার

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow