Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৩ মার্চ, ২০১৭

প্রকাশ : ২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৩:৫৬
আপডেট :
ঘাটতি নেই, তবুও উখিয়ায় লোডশেডিং
উখিয়া প্রতিনিধি
ঘাটতি নেই, তবুও উখিয়ায় লোডশেডিং
প্রতীকী ছবি

পর্যাপ্ত বিদ্যুৎ উৎপাদন সক্ষমতা থাকার পরও কক্সবাজারের উখিয়ায় দৈনিক ২০ বারের অধিক লোডশেডিং হচ্ছে। এ পরিস্থিতিতে চরম দুর্ভোগে পড়েছে এসএসসি/সমমান পরীক্ষার্থীরা। শুরু হওয়া এস এস সি ও সমমানের দুই হাজার ২৪৪জন শিক্ষার্থীসহ উখিয়ার প্রায় দুই লক্ষের অধিক সাধারণ মানুষ ও কৃষক ঘন ঘন বিদ্যুতের আসা-যাওয়ায় বেকায়দায় পড়েছেন। বোরো ক্ষেতে সেচ দিতে পারছে না কৃষক।

বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের (বিপিডিবি) হিসেবে বর্তমানে দেশে কোন লোডশেডিং নেই। বাংলাদেশ পাওয়ার গ্রিড কোম্পানির (পিজিসিবি) গত দুই দিনের তথ্য যাচাই করে দেখা গেছে সারাদেশে লোডশেডিং শূণ্যের কোটায়। বৃহস্পতিবার (২ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৬টা থেকে বেলা ১১ টা পর্যন্ত সারা দেশে বিদ্যুতের চাহিদা ছিল ৪ হাজার ৯৩৬ মেগাওয়াট থেকে সর্বোচ্চ ৬ হাজার ৩৬৭ মেগাওয়াট। এই চাহিদা উৎপাদন সক্ষমতার অর্ধেকেরও কম। চাহিদার বিপরীতে উৎপাদনও হয়েছে সম পরিমান বিদ্যুৎ। কিন্তু এই সময়েই উখিয়ায় কয়েকবার লোডশেডিং হয়েছে।

এক্ষেত্রে উখিয়ায় বিদ্যুৎ সরবরাহের দায়িত্বে থাকা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি বলছে, পর্যাপ্ত বিদ্যুৎ সরবরাহ না থাকায় এ অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে।  
সূত্রে জানা যায়, বোরো মৌসুমের শুরু থেকে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবারহ নিশ্চিত করার ঘোষণা দিয়েছে বর্তমান সরকার। পাশাপাশি এসএসসি পরীক্ষার্থীদের পড়ালেখায় বিঘ্ন না ঘটানোর জন্য খোদ প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবারহ বজায় রাখার জন্য নির্দেশ দেন। বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের তথ্যানুযায়ী বর্তমানে উৎপাদনেও ঘাটতি নেই। তবুও উখিয়ায় দৈনিক ১৫ থেকে ২০ বার লোডশেডিং হচ্ছে।

উখিয়া সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সদস্য ও রাজাপালং এমইউ ফাযিল ডিগ্রী মাদ্রাসার শিক্ষক দিদারুল আলম খোকন বলেন, লোডশেডিংয়ের ফলে পরীক্ষার্থীদের লেখাপড়ার ক্ষতি হচ্ছে। সারাদিনে ৪/৫ ঘণ্টাও মনে হয় বিদ্যুৎ থাকে না। অনন্ত পরীক্ষার্থীদের কথা মাথায় রেখে পরীক্ষা চালাকালীন সময়ে নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ করা উচিত।

উখিয়া উপজেলা কৃষক লীগের সাবেক সভাপতি কাজী আকতার উদ্দিন টুনু বলেন, চলতি মৌসুমের শুরুতে এভাবে লোডশেডিং শুরু হওয়ায় চরম আতংকে রয়েছে কৃষক।

উখিয়া পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ডিজিএম সালাউদ্দিন জুয়াদ্দার বলেন, বোরো চাষাবাদ শুরু হওয়ায় একটু লোডশেডিং দেখা দিয়েছে, এটি দ্রুত সময়ের মধ্যে স্বাভাবিক হয়ে উঠবে। আর পরীক্ষার্থীদের সুবিধার্থে রাতে লোডশেডিং কমানো হয়েছে।


বিডি-প্রতিদিন/এস আহমেদ

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow