Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ২৪ নভেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, শুক্রবার, ২৪ নভেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৯:১৪ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৯:১৫
ধর্ষিত কিশোরীকে চেয়ারম্যানের নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল
লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি:
ধর্ষিত কিশোরীকে চেয়ারম্যানের নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল

লক্ষ্মীপুরে শালিসী বৈঠকে ধর্ষিত কিশোরীসহ দু’জনকে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান কর্তৃক নির্যাতনের ঘটনা বাংলাদেশ প্রতিদিনসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত হওয়ার পর জেলা জুড়ে তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। একান্ত স্বাক্ষাতকারে আইন বিশেষজ্ঞরা বলছেন এ সংক্রান্ত বিষয়গুলো সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে কঠোরভাবে দেখা উচিৎ।

পুলিশ বলছে গণমাধ্যমে প্রকাশের পর বিষয়টি তাদের নজরে এসেছে, এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

লক্ষ্মীপুর জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতিম মু. হাফিজুর রহমান বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, ধর্ষণ সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে গ্রাম আদালত তথা ইউপি চেয়ারম্যান কোন বিচার করা আইন বহির্ভূত। ধর্ষণের বিচার হবে জেলা ও দায়রা জজ আদালতে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে। চেয়ারম্যান কর্তৃক নির্যাতনের ঘটনা দু:খজনক। এ সংক্রান্ত বিষয়গুলো সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ কঠোরভাবে দেখা উচিৎ বলে মত প্রকাশ করেন তিনি।  

জেলা আইনজীবী সমিতি ও জেলা আওয়ামী লীগ এর সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট নুর উদ্দিন চৌধুরী নয়ন একই কথা জানিয়ে বলেন, চেয়ারম্যান দলীয় প্রভাব বিস্তার করছেন কিনা তা খতিয়ে  দেখা হবে এবং এ ধরণের কোন অভিযোগ পেলে তদন্ত করে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণের সুযোগ রয়েছে।

এদিকে কমলনগর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আলমগীর হোসেন জানান, গণমাধ্যমে প্রকাশিত হওয়ার পর চেয়ারম্যানের নির্যাতনের বিষয়টি জানা গেছে। এ বিষয়ে উর্ধতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলাপ করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

প্রসঙ্গত:
জেলার কমলনগর উপজেলার চর মার্টিন ইউনিয়নে গত ৩১ ডিসেম্বর লক্ষ্মীপুরের কমলনগর উপজেলার চর মার্টিন ইউনিয়নে এক শালিসী বৈঠকে ধর্ষিত কিশোরীসহ দু’জনকে নির্যাতন করে ইউপি চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা ইউছুফ আলী মিয়া।

নির্যাতিত ওই দুইজন উপজেলার চর মার্টিন ইউনিয়নের বাসিন্দা। সম্পর্কে তারা দুজন দুলা ভাই ও শ্যালিকা। ঘটনার দেড় মাস পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গত রবিবার নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল হয়।  

তবে এ বিষয়ে অভিযুক্ত স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান বলেন, স্ত্রীকে রেখে মাদকসেবী ওই ঘরজামাই শ্যালিকাকে ধর্ষণ করে। সামাজিক চাপের মুখে ও উত্তেজিত জনগণকে ঠেকাতে তাদের মারধর করা হয়।  


বিডি প্রতিদিন/১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৭/হিমেল

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow