Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ১৯ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, শনিবার, ১৯ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৬:১২ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৮:৪৪
হোশি কোনিও হত্যা মামলার রায় ২৮ ফেব্রুয়ারি
নিজস্ব প্রতিবেদক, রংপুর
হোশি কোনিও হত্যা মামলার রায় ২৮ ফেব্রুয়ারি
ফাইল ছবি

রংপুরে জাপানি নাগরিক হোশি কোনিও হত্যা মামলার রায় ঘোষণার জন্য ২৮ ফেব্রুয়ারি দিন ধার্য করেছেন আদালত। আজ রবিবার রংপুরের বিশেষ জজ নরেশ চন্দ্র সরকার এ মামলায় দুই পক্ষের যুক্তিতর্ক শেষে রায়ের এই দিন ধার্য করেন।

 

এ মামলায় জাপানি নাগরিক হোশি কোনিওকে হত্যা করার অভিযোগ আনা হয়েছে জেএমবির রংপুর আঞ্চলিক কমান্ডার মাসুদ রানা ওরফে মন্ত্রী, সদস্য ইছাহাক আলী, লিটন মিয়া, আবু সাঈদ ও সাখাওয়াত হোসেন ওরফে রাহুল ও আহসান উল্লাহ আনসারী ওরফে বিপ্লবের বিরুদ্ধে।  

এদের মধ্যে রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিসংখ্যান বিভাগের তৃতীয় বর্ষের ছাত্র আহসান উল্লাহ আনসারী ওরফে বিপ্লব পলাতক থাকায় অপর পাঁচ আসামিকে আদালতে হাজির করা হয়।   

পলাতক অপর দুই আসামির মধ্যে জেএমবির সদস্য সাদ্দাম হোসেন ওরফে রাহুল গত ৫ জানুয়ারি রাতে ঢাকার মোহাম্মদপুর বেড়িবাঁধ এলাকায় কাউন্টার টেরোরিজম পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ এবং নজরুল ইসলাম ওরফে বাইক নজরুল ওরফে হাসান গত বছরের ২ অগাস্ট ভোরে রাজশাহীতে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত হন।

এ আদালতের রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী রথীশ চন্দ্র ভৌমিক বাবু সোনা জানান, ৬০ কার্যদিবসে ৫৭ জন সাক্ষীর মধ্যে ৫৫ জনের সাক্ষ্য নেওয়ার মধ্যদিয়ে গত ৬ ফেব্রুয়ারি সাক্ষ্য গ্রহণ শেষ হয়। দুই সাক্ষী ভারতে পালিয়ে যাওয়ায় আদালত সাক্ষ্য গ্রহণ শেষের ঘোষণা দেন। তবে ১৪ ফেব্রুয়ারি আসামি সাখাওয়াতের পক্ষে একজন সাফাই সাক্ষী দেন। রবিবার দুপুরে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে বিশেষ জজ  ২৮ ফেব্রুয়ারি রায় ঘোষণা হবে বলে আদেশ দেন।

২০১৫ সালের ৩ অক্টোবর সকালে নগরীর মুন্সিপাড়ার ভাড়া বাড়ি থেকে রিকশায় করে কাউনিয়া উপজেলার সারাই ইউনিয়নের আলুটারি গ্রামে ঘাষের খামারে যাওয়ার পথে দুর্বৃত্তের গুলিতে নিহত হন ৬৬ বছর বয়সী জাপানি নাগরিক কুনিও হোশি। ওইদিনই কাউনিয়া থানার তৎকালীন ওসি রেজাউল করিম বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা ব্যক্তির নামে হত্যা মামলা দায়ের করেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা গত বছরের ৩ জুলাই জেএমবির আট সদস্যের বিরুদ্ধে রংপুরের জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিমের আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। পরে মামলাটি বিশেষ জজ আদালতে স্থানান্তর করা হয়।  

মাসুদ রানা ওরফে মন্ত্রী, ইছাহাক আলী, লিটন মিয়া, আবু সাঈদ, সাখাওয়াত হোসেন ওরফে রাহুল কুনিও হোশি হত্যা মামলার আসামি ছাড়াও কাউনিয়া উপজেলায় মাজারের খাদেম রহমত আলী হত্যা এবং বাহাই নেতা রুহুল আমীনকে গুলি করে হত্যা চেষ্টা মামলার অভিযোগপত্রভুক্ত আসামি। আর আহসান উল্লাহ আনসারী ওরফে বিপ্লব বাহাই নেতা হত্যা চেষ্টা মামলার অভিযোগপত্রভুক্ত আসামি।  

বিডি প্রতিদিন/১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৭/এনায়েত করিম

আপনার মন্তব্য

up-arrow