Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ২০ অক্টোবর, ২০১৭

ঢাকা, শুক্রবার, ২০ অক্টোবর, ২০১৭
প্রকাশ : ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৪:৫৮ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৫:১২
লক্ষ্মীপুরে অবৈধ চিমনির ভাটায় পুড়ছে কাঠ, দূষিত হচ্ছে পরিবেশ
লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি
লক্ষ্মীপুরে অবৈধ চিমনির ভাটায় পুড়ছে কাঠ, দূষিত হচ্ছে পরিবেশ

লক্ষ্মীপুরে কোনো ধরনের সরকারি অনুমোদন ও পরিবেশ অধিদফতরের ছাড়পত্র ছাড়াই গড়ে উঠেছে বেশ কিছু ইটভাটা। পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয়ের পরিপত্রে পরিক্ষিত নতুন প্রযুক্তির পরিবেশবান্ধব ইটভাটা করার কথা লেখা থাকলেও বাস্তবে ড্রাম চিমনির মাধ্যমে ইট পোড়ানো হচ্ছে।

 

এছাড়া লোকালয়ের পাশে গড়ে উঠা এসব ইট ভাটার ফলে নষ্ট হচ্ছে কৃৃষি জমি এবং মারাত্মকভাবে দূষিত হচ্ছে পরিবেশ। ফুসফুস ক্যান্সারসহ নানা জটিল রোগের আশংকার মধ্যে বসবাস করছে মানুষ।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, সদর উপজেলায় অর্ধশতাধিক ইটভাটার মধ্যে বেশিরভাগই চলছে সরকারি অনুমোদন ছাড়া।  জেলার সদর উপজেলার দিঘলী, কুশাখালী এবং শাকচরসহ অধিকাংশ ইটভাটায় বন উজাড় করে কাঠ জ্বালিয়ে ইট পোড়ানো হচ্ছে। নষ্ট করা হচ্ছে শত শত একর ফসলি জমি। এসব অনিয়মের বিরুদ্ধে প্রশাসন  অথবা পরিবেশ অধিদফতরের কোনো তৎপরতা নেই বললেই চলে। প্রশাসনের সম্মতি নিয়েই এসব ইটভাটা পরিচালনা হচ্ছে বলে দাবি করেছেন সংশ্লিষ্টরা।

লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার কুশাখালী ইউনিয়নের ঝাউডগি এলাকায় সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাত্র একশ গজের মধ্যে জসিম উদ্দিন নামের এক ব্যক্তি নতুন করে ইটভাটা তৈরি করেছেন। এর কালো ধোঁয়া ও ছাইয়ের কারণে হাজার হাজার শিশু এখন স্বাস্থ্যঝুঁকিতে।

এ ইটভাটার কোনো সরকারি অনুমোদন ও পরিবেশের ছাড়পত্র দেখাতে পারেননি তিনি।  

ইট ভাটার মালিক নিজের অনিয়মের কথা স্বীকার করে বলেন, নিয়মের  ভেতরে আসার চেষ্টা করছেন।

আমেরিকার একটি পরিবেশ সংস্থার সদস্য সচিব ওয়াহিদুল হক বাবলু বাংলাদেশ প্রতিদিনকে জানান, ইটভাটার মালিকরা নিজেদের মধ্যে সিন্ডিকেট তৈরি করে যৌথভাবে উচ্চ আদালত থেকে  সাময়িক নিষেধাজ্ঞা এনে ইটভাটা চালু রাখেন। এতে করে তারা প্রশাসনকে বিভ্রান্ত করছেন।  

অবিলম্বে জনস্বার্থকে গুরুত্ব দিয়ে এসব ইটভাটা বন্ধ করতে সরকারের হস্তক্ষেপ কামনা করেন তিনি।   

লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা: আনোয়ার হোসেন বলেন, ইটভাটার ধোঁয়া ও কালো ছাই বাতাসে কার্বনডাই অক্সাইড ছড়িয়ে দিচ্ছে। আশেপাশের লোকালয়ে এর মারাত্বক প্রভাব পড়ছে। শিশু-বৃদ্ধসহ সব বয়সী মানুষ ক্যান্সারসহ নানা জটিল রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশংকা বাড়ছে।  

ইটভাটার কারণে পশু-পাখি, গাছপালা এবং কৃষকের উৎপাদিত ফসলেরও ক্ষতি হচ্ছে বলে জানান এ চিকিৎসক।  

এসব অবৈধ ইটভাটা বন্ধে কি করছে প্রশাসন জানতে চাইলে লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: নুরুজ্জামান বলেন, অবৈধ ইটভাটার ব্যাপারে জানা মাত্রই ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। কিছু ইটভাটায় উচ্চ আদালতের নিষেধাজ্ঞা রয়েছে বলে জানান এই কর্মকর্তা।

 

বিডি প্রতিদিন/২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭/ফারজানা-১৯

আপনার মন্তব্য

up-arrow