Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বুধবার, ২৩ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, বুধবার, ২৩ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৩:২৫ অনলাইন ভার্সন
আপডেট :
লামায় ইউএনও'র হস্তক্ষেপে বাল্যবিবাহ বন্ধ
লামা (বান্দরবান) প্রতিনিধি:
লামায় ইউএনও'র হস্তক্ষেপে বাল্যবিবাহ বন্ধ

বান্দরবানে লামার সদর ইউনিয়নের মেওলারচর এলাকায় এক ৫ম শ্রেণীর ছাত্রীর বিবাহ বন্ধ করেছেন লামা উপজেলা নির্বাহী অফিসার খিন ওয়ান নু ও লামা থানার পুলিশ। বুধবার দিবাগত রাত ১১টায় কনের বাড়িতে বিবাহের অনুষ্ঠান সম্পাদনের সময় হাতেনাতে বর কনেসহ তাদের পিতা মাতাকে আটক করে পুলিশ।

 

কনে আসমা আক্তার মেওলারচর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেণীর ছাত্রী। জন্ম নিবন্ধন মতে মেয়ের বয়স ১৫ বছর। বিবাহ করতে আসা বরের নাম মোঃ কবির। সে চাঁদুপর জেলার বাসিন্দা।  

জানা গেছে, চাঁদপুর জেলার মতলব থানার কালি আইস এলাকার আব্দুর রশিদের এর ছেলে ডুবাই ফেরত মোঃ কবির ২১ ফেব্রুয়ারি মঙ্গলবার লামা সদর ইউনিয়নের মেওলার চর এলাকার বসবাসরত আত্মীয় শহীদের বাড়িতে বেড়াতে আসে। মেওলারচর আসলে ৫ম শ্রেণীর ছাত্রী আসমা বেগমের সাথে তার দেখা হয় এবং আত্মীয় স্বজন দিয়ে বিবাহের প্রস্তাব পাঠায়। ডুবাই প্রবাসী ছেলে দেখে ভাল সুযোগ মনে করে মেয়ে পক্ষ সহজে রাজি হয়ে যায়। ২২ ফেব্রুয়ারি বুধবার রাতে বিবাহের আয়োজন করে মেয়ের পরিবার। খবর পেয়ে লামা উপজেলা নির্বাহী অফিসার খিন ওয়ান নু লামা থানা পুলিশকে বিবাহ বন্ধ করে তাদের আটকের নির্দেশ প্রদান করেন। পুলিশ গভীর রাতে অভিযান পরিচালনা করে উভয় পরিবারের অভিভাবকসহ ৭জনকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।
 
লামা উপজেলা নির্বাহী অফিসার খিন ওয়ান নু রাতে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে উভয় অভিভাবক ও বর কনের থেকে মুচলেকা নেন। রাতে ছেলে পক্ষের সকলকে পুলিশের হেফাজতে রাখতে নির্দেশ প্রদান করেন এবং মেয়ের নিয়মিত লেখাপড়া চলানোর জন্য স্থানীয় ইউপি মেম্বার সহ মেয়ের মা-বাবাকে নিদের্শ প্রদান করেন। অন্যথায় সকলকে আইনের আওতায় আনা হবে বলে জানান।  


বিডি প্রতিদিন/২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৭/হিমেল

আপনার মন্তব্য

up-arrow