Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ২৫ নভেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, শনিবার, ২৫ নভেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৯:০৩ অনলাইন ভার্সন
ঝালকাঠিতে কাজীসহ বিয়েপাগল বর শ্রীঘরে
ঝালকাঠি প্রতিনিধি:
ঝালকাঠিতে কাজীসহ বিয়েপাগল বর শ্রীঘরে
প্রতীকী ছবি

ঝালকাঠির রাজাপুরে নববধূকে আনুষ্ঠানিকভাবে তুলে আনতে গিয়ে একাধিক বিয়ে করা বিয়ে পাগল বরের জায়গা হয়েছে শ্রীঘরে। আর সেখানে তার সঙ্গী হয়েছেন কাজী।

বৃহস্পতিবার দুপুরে জৈষ্ঠ বিচারিক হাকিম রুবাইয়া আমেন তাদের জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।
দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- বর মনজুর আলম (২৪) ও ঘটক হানিফ হাওলাদার (৪০)।

গ্রেফতার হওয়া মনজুর আলম সদর উপজেলার ধানসিড়ি ইউনিয়নের বেরপাশা গ্রামের সোবাহান হাওলাদারের পুত্র। কাজী হানিফ হাওলাদারের বাড়ি রাজাপুর উপজেলার বলাইবাড়ি গ্রামে। মনজুর আলম বরিশাল জজ আদালতের চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী বলে জানা গেছে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানিয়েছে, গত (২০ ফেব্রুয়ারি) সোমবার ঝালকাঠি সদর উপজেলার ধানসিড়ি ইউনিয়নের বেরপাশা গ্রামের সোবাহান হাওলাদারের পুত্র মনজুর আলমের সাথে রাজাপুর উপজেলার বলাইবাড়ী এলাকার মৃত সোবাহান তালুকদারে মেয়ে সাথী আক্তারের বিয়ে হয়।

গতকাল বুধবার দুপুরে অর্ধশত বরযাত্রীসহ নববধূকে নিতে আসে মনজুর আলম ও তার বাবা সোবাহান হাওলাদার। এসময় স্থানীয়দের সহযোগিতায় নববধূ সাথী আক্তারের পরিবার জানতে পারে মনজুর এর আগেও এক ডজনের বেশি বিয়ে করেছেন।

প্রত্যেক স্ত্রীর পরিবার থেকে যৌতুক নিয়ে তাদের আর কোন খোঁজখবর রাখে না সে।

পরে স্থানীয়রা বর মনজুর আলম, তার বাবা সোবাহান হাওলাদার ও ঘটক হানিফকে আটক করে পুলিশে সোর্পদ করে। এসময়  বরযাত্রীরা পালিয়ে যায়।

এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার সকালে নববধূ সাথী আক্তারের ভাই আল-আমিন বাদী হয়ে মনজুর আলম, তার বাবা সোবাহান হাওলাদার ও ঘটক হানিফের বিরুদ্ধে প্রতারনার অভিযোগ এনে রাজাপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এই মামলা গ্রেফতার দেখিয়ে মনজুর আলম, তার বাবা সোবাহান হাওলাদার ও ঘটক হানিফকে বৃহস্পতিবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

বিডি-প্রতিদিন/এস আহমেদ

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow