Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ২০ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, রবিবার, ২০ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৬:২৮ অনলাইন ভার্সন
আপডেট :
নাটোরে সরকারি জায়গা দখল করে মার্কেট নির্মাণের অভিযোগ
নাসিম উদ্দীন নাসিম, নাটোর:
নাটোরে সরকারি জায়গা দখল করে মার্কেট নির্মাণের অভিযোগ

নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার নাজিরপুর হাটে সরকারি জায়গা দখল করে মার্কেট নির্মাণের অভিযোগ উঠেছে। নাজিরপুর ইউনিয়ন জামায়াতের আমীর নাজিম উদ্দিন প্রভাবশালীদের ম্যানেজ করে ওই স্থাপনাটি নির্মাণ করছেন।

গুরুদাসপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোছা. ইয়াসমিন আক্তার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, অভিযোগ পাওয়ার পর নির্মাণকাজ বন্ধের জন্য নাজিরপুর ইউনিয়ন ভূমি সহকারিকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।  

ইউনিয়ন ভূমি সহকারি আবুল কালাম আজাদ জানান, নির্মাণকাজ বন্ধের জন্য কয়েক দফা তাকে মৌখিক নির্দেশ দিয়েও কাজ হয়নি। সর্বশেষ গত বৃহষ্পতিবার কাজ বন্ধের জন্য নোটিশ দেওয়া হয়েছে নাজিম উদ্দিনকে।
সরেজমিন গিয়ে দেখা গেছে, নাজিরপুর কাঁচাবাজারের পাশে নন্দকুঁজা নদীর তীর ঘেঁষে উত্তর-দক্ষিণ বরাবর ছয় কক্ষ বিশিষ্ট মার্কেট নির্মাণকাজ চলছে। বাইরে থেকে কেউ যাতে বুঝতে না পারে, সেজন্য টিনের বেড়া দিয়ে ওই নির্মাণকাজ ঘেরাও করে রাখা হয়েছে। ইতিমধ্যে প্রায় ৬০ভাগ নির্মাণকাজ শেষ করা হয়েছে।

নাজিরপুর ইউনিয়ন ভূমি অফিস সূত্রে জানা গেছে, নাজিরপুর মৌজার ১নম্বর খাস খতিয়ানভুক্ত (শ্রেণি ভিটা) ১১৩ দাগের ১৩ শতক জায়গা জুড়ে নাজিম উদ্দিন একমাস ধরে পাকা মার্কেট নির্মাণ করছেন। কতিপয় স্থানীয় প্রভাবশালী ব্যক্তি দখলদারের পক্ষ নেওয়ায় নির্মাণ কাজটি বন্ধ করা সম্ভব হয়নি। বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে অবহিত করা হয়েছে।

ইউনিয়ন ভূমি সহকারি আবুল কালাম আজাদ আরো জানান, নিয়মনীতি উপেক্ষা করে এক যুগেরও বেশি সময় ধরে নাজিম উদ্দিন ওই জায়গাটি জবর দখল করে রয়েছেন। সরকারি জায়গাটি ছেড়ে দেওয়ার জন্য বিভিন্ন সময় ইউনিয়ন ভূমি অফিস থেকে মৌখিকভাবে ছেড়ে দেওয়ার জন্য বলা হলেও কাজ হয়নি। উপরন্ত জায়গাটি অবৈধভাবে ভোগদখল করার জন্য প্রায় দশ বছর আগে সরকারকে বিবাদী করে নাটোর সহকারি জজ আদালতে মামলা (২৮/০৭ অঃপ্রঃ) দায়ের করেন। সর্বশেষ চলতি বছরের ১৬ ফেব্রুয়ারি গুরুদাসপুরের সহকারি কমিশনারকে (ভূমি) প্রতিপক্ষ করে ওই সম্পত্তির আইনী যাবতীয় কার্যক্রম স্থগিতের জন্য আবেদন করেছে অবৈধ দখলদার নাজিম উদ্দিন।

দখলদার নাজিম উদ্দিন বলেন, জায়গাটি তাদের নিজস্ব। তবে ৭৪এর রেকর্ডকালিন সময়ে অর্ধেক সম্পত্তি খাসখতিয়ানভুক্ত করা হয়েছে। জায়গাটি নিয়ে আদালতে মামলা রয়েছে।

বিডি প্রতিদিন/এ মজুমদার

 

আপনার মন্তব্য

up-arrow