Bangladesh Pratidin

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৪ অক্টোবর, ২০১৭

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৪ অক্টোবর, ২০১৭
প্রকাশ : ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৬:৪৪ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৬:৪৪
নেত্রকোনায় পুলিশের জঙ্গিবাদ বিরোধী সমাবেশ
নেত্রকোনা প্রতিনিধি:
নেত্রকোনায় পুলিশের জঙ্গিবাদ বিরোধী সমাবেশ

নেত্রকোনার কেন্দুয়ায় ছাত্রদলের সমাবেশে পুলিশ ছাত্রদল সংঘর্ষে ১৩ পুলিশ আহত হওয়ার ঘটনায় প্রতিবাদ সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ এই মিছিল চলাকালিন দোকানপাটে হামলা লুটপাটের আশংকায় পুরো বাজারের সকল ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখেন বাজার সমিতি।

এদিকে পুলিশ বাদী হয়ে ২৩৯ জনের নাম উল্লেখপূর্বক আরো ৩ শত অজ্ঞাত নেতাকর্মীসহ সর্বমোট ৫ শত ৩৯ জনকে আসামী করে এসল্ট মামলা দায়েরর পর গ্রেফতার অভিযান অব্যাহত রয়েছে।  

জানা গেছে, “পুলিশই জনতা, জনতাই পুলিশ” এই স্লোগানকে সামনে রেখে মঙ্গলবার নেত্রকোনার কেন্দুয়ায় পুলিশের উপর ছাত্রদলের হামলার প্রতিবাদে মাদক ও জঙ্গীবাদ বিরোধী সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। সকাল ১১টায় কেন্দুয়া কমিউনিটি পুলিশিং কমিটির উদ্যোগে হামলার ঘটনাস্থল পৌর এলাকার আলীপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে এ সমাবেশ অনুষ্টিত হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক ড. মুশফিকুর রহমান।  

এ সময় পুলিশ সুপার জয়দেব চৌধুরী, কেন্দুয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ মুতাহসিমুল ইসলামসহ আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, কমিউনিটি পুলিশের সকল সদস্যসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।  

এদিকে একই প্রতিবাদে দুপুরে পৌরসভার সামনে থেকে উপজেলায় আলাদাভাবে আওয়ামী লীগের বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নূরুল ইসলাম ও পৌর মেয়র আসাদুল হক ভূইয়ার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ অঙ্গ সংগঠনের সহশ্রাধিক নেতাকর্মী লগি বৈঠা মিছিলে অংশ নেয়। মিছিলটি কেন্দুয়া পৌর এলাকার প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে পুনঃরায় পৌরসভার সামনে গিয়ে শেষ হয়। পরে সেখানে প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।


অপরদিকে সকাল থেকেই বাজারের ব্যবসায়ীরা লুটপাট আতঙ্কে সকল ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখেন। বিগত দিনের ন্যায় যাতে মিছিলের সময় লুটপাট না হয় সেজন্য তারা পুলিশের পরামর্শ অনুযায়ী দোকান পাট বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বাজার সমিতির এক নেতা জানান।  

উল্লেখ, গত ২৪ ফেব্রুয়ারী শুক্রবার দুপুরে আলীপুর প্রাথমিক স্কুল মাঠে উপজেলা ছাত্রদলের কর্মী সামাবেশে পুলিশের লাঠিচার্জকে কেন্দ্র করে পুলিশ ও ছাত্রদলের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ সময় পুলিশের ১৩ জন সদস্য আহত হয়। এ ঘটনায় পুলিশ পুরো জেলা থেকে ৫২ জনকে গ্রেফতার করে। এরপর কেন্দুয়া থানার এসআই গোপাল কৃষ্ণ দাস বাদী হয়ে ২৫ ফেব্রুয়ারী রাতে কেন্দুয়া থানায় মামলা দায়ের করেন।  


বিডি প্রতিদিন/২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৭/হিমেল

আপনার মন্তব্য

up-arrow