Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ৫ মার্চ, ২০১৭ ১৬:০৬ অনলাইন ভার্সন
মোরেলগঞ্জে ভাইস চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচন সোমবার
মশিউর রহমান মাসুম, মোরেলগঞ্জ
মোরেলগঞ্জে ভাইস চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচন সোমবার

বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচন সোমবার অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টি (এরশাদ) মনোনীত প্রার্থীরা দলীয় প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

ভাইস চেয়ারম্যান চেয়ারম্যান ছাবুল আখতারের মুত্যৃজনিত কারণে ১৩ মাস পূর্বে পদটি শূন্য হয়। ওই পদে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন পেয়েছেন প্রয়াত ভাইস চেয়ারম্যান ছাবুল আখতারের স্ত্রী ফাহিমা খানম। বিএনপি থেকে মো. বদিউজ্জামান খান ও জাতীয় পার্টি থেকে মো. আখতারুজ্জামান।

আওয়ামী রাজনীতিতে ফাহিমা খানমের তেমন কোনো ভূমিকা না থাকলেও তিনি খোদ আওয়ামী পরিবারের এবং অসহায় বিবেচনায় দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন। এক সময় তিনি উপজেলা ছাত্রলীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা ছিলেন। স্থানীয় আওয়ামী শিবিরে বিভক্তি, বিরোধীতা ও দ্বিমত থাকলেও ফাহিমা খানমের প্রচার প্রচারণায় তেমন কোনো পিছুটান ছিল না। যুবলীগের নেতাকর্মীরা তাকে বেশ এগিয়ে নিয়েছেন। নির্বাচনে জয়ের বিষয়ে শতভাগ আশাবাদী ফাহিমা খানম।

বিএনপির প্রার্থী বদিউজ্জামান লড়ছেন ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে। বদিউজ্জামান বিএনপির রাজনীতিতে ছাত্রজীবন থেকেই সক্রিয়। এক সময় উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি ছিলেন। বর্তমানে যুবদলের সভাপতি এবং উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক। এই উপ-নির্বাচনে মনোনয়ন জমার দিন থেকেই তিনি বেশ বাধা বিপত্তির মধ্যে আছেন। স্বাভাবিকভাবে নির্বাচনী প্রচার প্রচারণা চালাতে পারেননি। এর ফলে হাইকোর্টে একটি রিটপিটিশন দায়ের করলে হাইকোর্ট তার আবেদনের পক্ষে আদেশ দিয়েছেন। নির্বাচন অবাধ, শান্তিপূর্ণ ও উৎসবমূখর হলে তিনি জয়ের বিষয়ে আশাবাদী।

মো. আখতারুজ্জামান লড়ছেন জাতীয় পার্টির মনোনয়নে লাঙ্গল প্রতীক নিয়ে। রাজনীতিতে তিনি নতুন। সেনা বাহিনীতে চাকরি শেষে ৫/৬ বছর পূর্বে জাতীয় পার্টিতে নাম লিখিয়ে বিদেশ করেছেন। এই উপ-নির্বাচনে তেমন প্রচার প্রচারণা তিনি করতে পারেননি। বাধা, হুমকির কারণে অনেকটা অতিথির মতোই সময় পার করেছেন তিনি। এসবের পরেও আখতারুজ্জামান মনে করেন, সাধারণ মানুষ যদি ভোট দেওয়ার সুযোগ পায় তাহলে লাঙ্গলের জয় হবে।

এই উপ-নির্বাচন অবাধ ও শান্তিপূর্ণ করতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। রিটার্নিং অফিসার মো. হুমায়ুন কবির জানান, সবকিছু ঠিকঠাক রাখতে র‌্যাব-৬, বিজিবি, এপিবিএন, পুলিশ, আসনার ভিডিপি মোতায়েন করা হয়েছে। এ উপজেলায় ১শ’ ৯টি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ করা হবে। এখানে মোট ভোটার সংখ্যা ২ লাখ ৮ হাজার ৫৬৫ জন। এর মধ্যে মহিলা ভোটার ১ লাখ ৪ হাজার ৫২৫ জন।

বিডি প্রতিদিন/৫ মার্চ ২০১৭/এনায়েত করিম

আপনার মন্তব্য

up-arrow