Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ২৫ নভেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, শনিবার, ২৫ নভেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : ১০ মার্চ, ২০১৭ ১৭:০৩ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ১০ মার্চ, ২০১৭ ১৭:০৫
নির্বাচনোত্তর সহিংসতা
বড়াইগ্রামে দোকানপাট বন্ধ করে দেয়ার হুমকি, ব্যবসায়ীরা আতঙ্কে
নাটোর প্রতিনিধি
বড়াইগ্রামে দোকানপাট বন্ধ করে দেয়ার হুমকি, ব্যবসায়ীরা আতঙ্কে

নাটোরের বড়াইগ্রামের জোনাইল বাজারে নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতার জের ধরে আওয়ামী লীগের আবুল কালাম আজাদ গ্রুপের লোকজনের মারপিট ও বিভিন্ন দোকানপাট বন্ধ করে দেয়ার ঘটনায় গত পাঁচ দিন ধরে ব্যবসায়ীরা আতঙ্কে রয়েছেন।  

যে কোনো সময় দোকানপাটে হামলা ও লুটপাটসহ বড় ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটার আশঙ্কা করছেন তারা।

স্থানীয় ব্যবসায়ীরা জানান, গত ৬ মার্চ বড়াইগ্রাম উপজেলা পরিষদ উপ-নির্বাচনের দিন সন্ধ্যার পর থেকেই জোনাইলে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।  

পরদিন সকালে বিগত ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আবুল কালাম আজাদের ছেলে পুটু এবং তার বন্ধু বুলবুল ও আরিফের নেতৃত্বে ১০-১৫ জন লোক জোনাইল বাজারে ৮ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি শামসুল ইসলামের দোকানসহ ৪/৫টি দোকান জোরপূর্বক বন্ধ করে দেয়।  

এ সময় মুদি দোকানদার রফিকুল ইসলাম ও নাজিরপুর জোলারপাড়ের বাসিন্দা ব্যবসায়ী আব্দুল জলিলকে পিটিয়ে আহত করে তারা।  

পরে খবর পেয়ে পুলিশ এসে বন্ধ দোকানগুলো খুলে দিলেও গত পাঁচ দিন ধরে তারা জোনাইল বাজারের বিজয় কুমার পাল, আওয়ামী লীগ নেতা গৌতম চন্দ্র ধরের গৌতম ফোন ঘরসহ কয়েকটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার জন্য অব্যাহত হুমকি দিয়ে আসছে।  

এসব ঘটনায় ব্যবসায়ীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।  

এ ব্যাপারে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ব্যবসায়ী জানান, তাদের হুমকির কারণে অনেকেই ঠিকমতো দোকানপাট খুলছেন না। তাছাড়া বাজারে ক্রেতারাও কম আসছেন। এতে আমাদের ব্যবসার ক্ষতি হচ্ছে। তবে আবুল কালাম আজাদের কাছে জানতে চাইলে তিনি এসব ঘটনা অস্বীকার করেন।

 

বড়াইগ্রাম থানার ওসি শাহরিয়ার খান বলেন, জোনাইল বাজারে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। ব্যবসায়ীসহ কারও কোনো ক্ষতি যেন না হয় সে ব্যাপারে আমরা তৎপর রয়েছি।  

বিডি প্রতিদিন/১০ মার্চ, ২০১৭/ফারজানা

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow