Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বুধবার, ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, বুধবার, ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : ১১ মার্চ, ২০১৭ ১৮:০৮ অনলাইন ভার্সন
বহিরাগতদের উপদ্রবে অতিষ্ঠ বরিশাল মেডিকেলের ইন্টার্ন চিকিৎসকরা
নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল

বহিরাগতদের উপদ্রবে অতিষ্ঠ বরিশাল মেডিকেলের ইন্টার্ন চিকিৎসকরা

বরিশাল শেরে-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের এফ. এম. নূর-উর-রফী ইন্টার্ন ডক্টরর্স হোস্টেলে বহিরাগতদের উপদ্রব দীর্ঘদিনের। স্থানীয় ক্ষমতাসীনরা অবৈধভাবে হোস্টেলে অনুপ্রবেশ করে ইন্টার্ন ডক্টরদের জিন্মি করে মাদক সেবন, মাদক বেঁচা-কেনা সহ হোস্টেলে নারী নিয়ে অসামাজিক কার্যাকলাপ সহ করে থাকেন বলে এমন অভিযোগও দীর্ঘদিন ধরেই শোনা যাচ্ছে।  

অবৈধ অনুপ্রবেশকারীরা ক্ষমতাসীন দলের প্রভাবশালী হওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে কোণ পদক্ষেপ নেওয়ার সাহস পেতেন না ইন্টার্ন চিকিৎসকরা। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে বেশ কয়েকটি ছিনতাই সহ বহিরাগতদের উপদ্রব বেড়ে যাওয়ায় তারা মেডিকেল কলেজ কর্তৃপক্ষের কাছে লিখিত অভিযোগ করেন।  

শেরে-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ইন্টার্ন চিকিৎসক এসোসিয়েশনের সাধারন সম্পাদক ডা. অনুপ সরকার বলেন, "গত ৪/৫ বছর ধরে ছাত্রলীগ নামধারী ক্যাডার সাবিক আলম দোলন সহ তার সাঙ্গপাঙ্গরা ইন্টার্ন হোস্টেলের বিভিন্ন কক্ষ অবৈধভাবে দখল করে সেখানে বহিরাগত নারী নিয়ে অসামাজিক কার্যকলাপ সহ মাদক সেবন এবং মাদক বেঁচা-কেনা করে আসছিল। তাদের ভয়ে কেউ প্রতিবাদ করার সাহস পর্যন্ত পেতেন না ইন্টার্ন চিকিৎসকরা। এ বিষয়ে কর্তৃপক্ষের কাছে বিভিন্ন সময় অভিযোগ করেও কোন সুফল পাননি তারা। কিন্তু গত শুক্রবার রাতে এক ইন্টার্ন চিকিৎসকের মোবাইল ফোন ছিনতাই এবং এর দুইদিন আগে অস্ত্র ঠেকিয়ে দুই নারী ইন্টার্ন চিকিৎসককে স্বর্নালংকার ছিনতাইয়ের পর তারা আবারও কর্তৃপক্ষের কাছে তাদের অসহায়ত্বের কথা তুলে ধরেন। " 

মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. ভাস্কর সাহা জানান, "শিক্ষার্থীদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে গতকাল হাসপাতাল ও কলেজ প্রশাসন পুলিশের সহায়তায় ওই হোস্টেলে আকস্মিক অভিযান চালায়। এ সময় অনেকে পালিয়ে গেলে হোস্টেলের ৪র্থ তলার ৪০৯ নম্বর কক্ষে গত ৫/৬ দিন ধরে অবৈধভাবে বসবাসকারী নলছিটির জমি ব্যবসায়ী মো. আলমগীর হোসেনকে আটক করেন তারা। "

আটক আলমগীর প্রশাসনের উপস্থিতিতে "আলেকান্দার ছাত্রলীগ নেতা জনৈক দোলন তাকে ইন্টার্ন হোস্টেলে থাকার ব্যবস্থা করে দিয়েছে।

গত ৫/৬দিন ধরে তিনি এই হোস্টেলে অবস্থান করলেও কোন অসামাজিক কার্যকলাপ করেননি। " 

মেডিকেল কলেজ অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. ভাস্কর সাহা জানান, "বিভিন্ন সময়ে ইন্টার্ন চিকিৎসকদের অভিযোগের সত্যতা প্রতীয়মান হয়েছে গতকালের অভিযানের সময়। হোস্টেলের বিভিন্ন কক্ষের তালা ভেঙ্গে উদ্ধার করা হয় মরনঘাতি মাদক ইয়াবা সেবনের বিভিন্ন উপকরন, হাউজি খেলার সরঞ্জাম, একটি ধারালো দা, রড ও হকি স্টিক। " 

শেরে-ই বাংলা মেডিকেল হাসপাতালের পরিচালক ডা. এসএম সিরাজুল ইসলাম বলেন, "হোস্টেল অবৈধ দখল মুক্ত করার পর শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার খাতিরে আর যাতে বহিরাগতরা হোস্টেলে প্রবেশ করতে না পারে সেদিকে সতর্ক দৃস্টি রাখবে কলেজ ও হাসপাতাল প্রশাসন এবং পুলিশ। " 
 
কোতয়ালী মডেল থানার এসআই আবু তাহের জানান, "গতকাল পুলিশের উপস্থিতিতে হাসপাতাল ও মেডিকেল কলেজ কর্তৃপক্ষ ইন্টার্ন হোস্টেলের বিভিন্ন কক্ষ তল্লাশী করে মাদক সেবনের উপকরন, হাউজি খেলার সরঞ্জাম, ধারালো দা, রড, হকি স্টিক সহ একজন বহিরাগতকে আটক করেছে। এ ঘটনায় মেডিকেল কিংবা কলেজ কর্তৃপক্ষ লিখিত অভিযোগ দিলে আইনগত ব্যবস্থা নেবে পুলিশ। " 

তিনি আরো বলেন, "এর আগে গত শুক্রবার রাত ১১টার দিকে সেতু নামে এক সহপাঠীর মোবাইল ফোন ছিনতাইয়ের অভিযোগে এক সন্দেহভাজন ছিনতাইকারীকে আটকে বেদম মারধর করে ইন্টার্ন চিকিৎসকরা। এ সময় তারা মেডিকেলের জরুরী বিভাগের গেটে তালা ঝুলিয়ে বিক্ষোভ করতে থাকে। এতে রোগী সেবা ব্যহত হয়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে ইন্টার্ন চিকিৎসকদের কাছ থেকে আটক সন্দেহভাজন ছিনতাইকারীকে হেফাজতে নেয় পুলিশ। হাসপাতালের জরুরী বিভাগের গেট আটকে ইন্টার্ন চিকিৎসকদের বিক্ষোভের খবর পেয়ে তৎপর হন পরিচালক ডা. এসএম সিরাজুল ইসলাম এবং মহানগর আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ ও পুলিশ। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাসে প্রায় ১ ঘন্টা পর রাত ১২টার দিকে জরুরী বিভাগের গেটের তালা খুলে দেয় বিক্ষুব্ধ ইন্টার্ন চিকিৎসকরা। এরপর স্বাভাবিক হয় চিকিৎসা ব্যবস্থা। "


বিডি-প্রতিদিন/ ১১ মার্চ, ২০১৭/ আব্দুল্লাহ সিফাত-১৩

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow