Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ২০ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, রবিবার, ২০ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : ১৪ মার্চ, ২০১৭ ১৮:০৭ অনলাইন ভার্সন
আপডেট :
নওগাঁয় হত্যা মামলায় আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি
নওগাঁ প্রতিনিধি:
নওগাঁয় হত্যা মামলায় আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি

নওগাঁ পলিটেননিক ইনস্টিটিউটের ছাত্র শ্যামল চন্দ্র বর্মণের হত্যার ঘটনায় ১৬৪ ধারায় আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন ওই ঘটনায় করা মামলায় গ্রেফতার হওয়া আতোয়ার হোসেন, মোহাম্মদ রনি ও ফয়সাল হোসেন। হত্যার দায় স্বীকার করে সোমবার সন্ধ্যায় নওগাঁ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুল মালেকের আদালতে এ জবানবন্দি দেন তারা।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা নওগাঁ সদর থানার পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশন) আনোয়ার হোসেন জবানবন্দির বিষয়টি নিশ্চিত করেন। শ্যামল হত্যার মূল পরিকল্পনাকারী আতোয়ার হোসেনের জবানবন্দির উদ্ধৃতি দিয়ে আনোয়ার হোসেন বলেন, গত ৮ মার্চ পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের ষষ্ঠ সেমিস্টারের এক ছাত্রীকে উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় শ্যামলকে হত্যার পরিকল্পনা করেন আতোয়ারসহ ছয়-সাতজন। ওই দিন থেকেই শ্যামলকে মারার জন্য সুযোগ খুঁজছিল আতোয়ার ও তার সহযোগীরা।  

গত শুক্রবার (১০ মার্চ) রাত ৮টার দিকে শহরের পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের পাশে আরজি-নওগাঁ ফিশারি গেটের সামনে তাকে একা পেয়ে ছুরি দিয়ে উপর্যুপরি আঘাত করে। তিনি বলেন, এই ঘটনায় গ্রেফতার রনি ও ফয়সালও শ্যামল হত্যায় জড়িত থাকার বিষয়টি স্বীকার করেছেন। তারাও প্রায় একই রকম বক্তব্য দিয়েছেন।

মামলার এজহার ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ছাত্রী উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় গত ৮ মার্চ পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটে আতোয়ার ও শ্যামলের মধ্যে বাকবিতণ্ডা হয়। ওই সময় আতোয়ার শ্যামলকে দেখে নেওয়ার হুমকি দেন। গত ১০ মার্চ রাতে আতোয়ার ও তার সহযোগীরা শ্যামলকে ছুরিকাঘাত করে। স্থানীয়রা গুরুত্বর আহত অবস্থায় শ্যামলকে সেখান থেকে উদ্ধার করে প্রথমে নওগাঁ সদর হাসপাতালে ভর্তি করান। পরে ওই রাতেই তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় শ্যামলের বাবা গোপাল চন্দ্র বাদী হয়ে নওগাঁ সদর থানায় আতোয়ারসহ নয়জনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত আরও ছয়-সাতজনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলার সূত্র ধরে শনিবার পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের ৭ম সেমিস্টারের ছাত্র আতোয়ার হোসেন ও মোহাম্মদ রনি এবং চতুর্থ সেমিস্টারের ছাত্র ফয়সালকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

 

বিডি প্রতিদিন/১৪ মার্চ ২০১৭/হিমেল

আপনার মন্তব্য

up-arrow