Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ২০ মার্চ, ২০১৭ ১৯:২৬
আপডেট : ২০ মার্চ, ২০১৭ ২১:১০
জমি বেচে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য বানালেন তিনি
শেখ আহসানুল করিম, বাগেরহাট:
জমি বেচে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য বানালেন তিনি

বাগেরহাটের শরণখোলা উপজেলার নলবুনিয়া গ্রামের দরিদ্র এক রাজমিস্ত্রী তার একমাত্র সম্বল সবেধন নীলমনি ১৩ শতক জমির সাড়ে ৯ শতকই বিক্রি করে তৈরি করলেন বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য। ছগির হোসেন নামের এই রাজমিস্ত্রী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি শ্রোদ্ধা ও গভীর ভালবাসা থেকে বানিয়েছেন বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য। সগির মিস্ত্রির তৈরি এই ভাস্কর্য স্থানীয়দের মাঝে সাড়া জাগিয়েছে। প্রতিদিন বঙ্গাবন্ধুর এই ভাস্কর্য দেখেতে আমজনতা ভিড় করছেন সগির মিস্ত্রীর বাড়িতে। সগির মিস্ত্রী তার তৈরি বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যটি এখন উপহার হিসেবে তুলে দিতে চান বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে।

বাগেরহাটের শরণখোলা উপজেলার নলবুনিয়া গ্রামের রাজমিস্ত্রী ছগির হোসেন শিশুকাল থেকে স্থানীয়দের কাছে বঙ্গবন্ধু ও স্বাধীনতার ইতিহাস শুনেই বঙ্গবন্ধুর প্রতি শ্রোদ্ধা ও গভীর ভালবাসা জন্মে। ভূমিহীন দরিদ্র পরিবারের সন্ত্রান সগির কিশোর বয়সেই রাজমিস্ত্রীর সহযোগী হিসাবে কর্মজীবন শুরু করেন। একই এলাকার প্রতিবন্ধি সুমী বেগমকে বিয়ে করে শশুরবাড়ি থেকে উপহার হিসেবে ঘর তৈরি করে থাকার জন্য পান ১৩ শতক জমি। এই জমিতেই ঘর বেঁধে সংসার শুরু করেন ছগির মিস্ত্রী। কয়েক বছরের মধ্যে তিন সন্তানের জনক ছগির সহযোগী থেকে পুরোপুরি রাজমিস্ত্রি হয়ে যান।

শরণখোলা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান কামাল উদ্দিন আকন বলেন, গরিব মানুষ ছগির মিস্ত্রির নিজের বসতবাড়ি বিক্রি করে বঙ্গবন্ধুর যে ভাস্কর্য নির্মাণ করেছে, তা দেখার মত। একজন সাধারণ মানুষের মনে যেভাবে বঙ্গবন্ধুর প্রতি শ্রোদ্ধা ও ভালোবাসা জেগেছে তা দেখে আমাদের সবার শিক্ষা নেওয়া উচিৎ। বঙ্গবন্ধুর প্রতি তার এই ভালবাসা সকলকে মুগ্ধ করেছে।

বিডি প্রতিদিন/মজুমদার

 

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow