Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বুধবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, বুধবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ২১:২২ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ২১:২৩
বগুড়ায় দুর্গোৎসবকে ঘিরে উৎসবের আমেজ
আবদুর রহমান টুলু, বগুড়া:
বগুড়ায় দুর্গোৎসবকে ঘিরে উৎসবের আমেজ

আসছে শারদীয় দুর্গা পূজা। তাই সনাতন ধর্মের মানুষের মাঝে উৎসবের আমেজ লেগেছে।

বগুড়া জেলায় মন্দিরগুলো ধুয়ে মুছে পরিচ্ছন্ন হতে শুরু করেছে। রং এর কাজ চলছে। চলছে প্রতিমার তৈরীর শেষ পর্যায়ের কাজ। দেশের অন্যন্য স্থানের মতো বগুড়াতেও সার্বজনীন এই উৎসবকে ঘিরে নানা আনুষ্ঠানিকতার প্রস্তুতি চলছে জোরেসোরে। বগুড়ায় জেলায় এবার ৬২০টি মন্ডপে পূজার আয়োজন চলছে।
জানা যায়, আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হচ্ছে হিন্দু সম্প্রদায়ের বৃহৎ ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গা পূজা। প্রতিমা তৈরীর কাজ শেষের পথে। জেলার পুজা মন্ডপগুলোতে চলছে পরিচ্ছন্নতার কাজ। প্রতিমার মাটির কাজ সম্পন্ন হলেই শিল্পীরা ব্যস্ত হয়ে পড়বে রংয়ের শেষ আঁচড় দিতে। মন্ডপগুলোতে নানা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও উৎসব আয়োজনের প্রস্তুতিও চলছে পুরোদমে। গতবারের চেয়ে এবারে পূজার খরচ বেড়ে গেলেও আয়োজনে কমতি করতে রাজি নয় বলে জানিয়েছেন পুজামন্ডপের কর্মীরা। সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে পূজা উদযাপনের জন্য তিন স্তরের বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়েছে বগুড়ার পুলিশ প্রশাসন।
১৯ সেপ্টেম্বর মহালয়ার মধ্য দিয়ে শুরু হবে দুর্গোৎসবের দিনগণনা। ২৬ সেপ্টেম্বর ষষ্ঠীর মধ্য দিয়ে শুরু হয়ে ৩০ সেপ্টেম্বর বিজয়া দশমী ও বিসর্জনের মধ্য দিয়ে সমাপ্তি হবে এবছরের দুর্গোৎসব। বগুড়া জেলায় এবছর ৬২০টি মন্ডপে দুর্গাপূজা উদযাপন হবে। পুজা উদযাপন পরিষদ বগুড়া জেলা শাখার এক সভায় প্রাথমিকভাবে এ তথ্য জানানো হয়েছে। এ সংখ্যা গত বছর ছিল ৬১৭টি। তবে পুজা উদযাপন পরিষদ এর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে এবারের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে। প্রাথমিকভাবে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী জেলার মধ্যে বগুড়া সদর উপজেলায় সর্বাধিক সংখ্যক ১০২টি মন্ডপে দুর্গাপূজা উদযাপন হবে।
এ ছাড়াও শিবগঞ্জে ৪৯টি, সোনাতলায় ৩৬টি, গাবতলীতে ৭০টি, সারিয়াকান্দিতে ২৬টি, ধুনটে ২৬টি, শেরপুরে ৭৫টি, নন্দীগ্রামে ৪৭টি, আদমদীঘিতে ৫৯টি, দুপচাঁচিয়ায় ৩৯টি, কাহালুতে ৩৮ এবং শাজাহানপুরে ৪৯টি মন্ডপে পূজা উদযাপন হবে।
বগুড়া জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সনাতন চক্রবর্তী জানান, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে পূজা উদযাপনের জন্য নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণে পুলিশ প্রশাসন থেকে ব্যাপক প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে। তিন স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা রাখা হচ্ছে। সেইসাথে মন্ডপগুলোতে পুলিশ সদস্যদের সাথে আনসার এবং পূজা উদযাপন কমিটির স্বেচ্ছাসেবীরা কাজ করবে। মন্ডপ এলাকায় র‌্যাবের টহল ব্যবস্থাও থাকবে।

বিডি প্রতিদিন/ সালাহ উদ্দীন

আপনার মন্তব্য

up-arrow